পোস্টগুলি

March, 2015 থেকে পোস্টগুলি দেখানো হচ্ছে

ঢাকাই আজ অনেক বিষ্টি হচ্ছে সারা ঢাকাই অন্দকার হয়ে গেছে বিষ্টি হয়তাছে কি মজা লাগতছে পুরা ঢাকা বাসীর কাছে

ঢাকাই আজ অনেক  বিষ্টি হচ্ছে  সারা ঢাকাই অন্দকার  হয়ে গেছে   বিষ্টি  হয়তাছে কি মজা লাগতছে পুরা ঢাকা বাসীর কাছে

মঙ্গলবার রাত ৮টা ১০ মিনিটে একাই গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে যান তিনি। আধা ঘণ্টা পর বেরিয়ে যাওয়ার সময় তার চোখে জল দেখা যাচ্ছিল। সালাহ উদ্দিন নিখোঁজ হওয়ার পর এটা হাসিনার দ্বিতীয়বার খালেদার সঙ্গে দেখা করতে আসা। এর আগে গত ১৭ মার্চ ছেলে-মেয়েকে নিয়ে তিনি দেখা করতে এসেছিলেন। গত ১০ মার্চ রাতে উত্তরার একটি বাসা থেকে গোয়েন্দা পুলিশ পরিচয়ে সালাহ উদ্দিনকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয় বলে তার পরিবারের অভিযোগ। স্বামীর খোঁজ চেয়ে উচ্চ আদালতে রিট আবেদনও করেছেন হাসিনা। তবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে আদালতকে বলা হয়েছে, পুলিশ সালাহ উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করেনি। তার কোনো খোঁজও পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে আগামী ৮ এপ্রিল হাই কোর্টে আবার শুনানির তারিখ রাখা হয়েছে।

ছবি

সিটি নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার পর বিএনপি নেতাদের ভোটে থাকা নিয়ে মন্ত্রীরা সংশয় প্রকাশ করলেও তা উড়িয়ে দিয়েছেন খালেদা জিয়ার অন্যতম পরামর্শক অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমদ। মঙ্গলবার রাতে বিএনপি চেয়ারপারসনের সঙ্গে দেখা করে বেরিয়ে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, “নির্বাচন বয়কটের প্রশ্নই আসে না। “আমরা চাই, সব প্রার্থীরা যাতে তাদের ভোটারদের কাছে যোগাযোগ করতে পারেন, যেতে পারেন এবং ভোটাররা তাদের পছন্দসই প্রার্থীকে ভোট দিতে পারে, সেরকম একটি পরিবেশ নির্বাচন কমিশন নিশ্চিত করবে।” নির্দলীয় সরকারের অধীনে মধ্যবর্তী নির্বাচনের দাবিতে লাগাতার হরতাল-অবরোধ চালানোর মধ্যেই সিটি নির্বাচনে অংশগ্রহণের পথে এগিয়ে এসেছে বিএনপি। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনে আনুষ্ঠানিকভাবে দলের পক্ষ থেকে মেয়র প্রার্থীকে সমর্থন দেওয়া হয়েছে। ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণে বৃহস্পতিবারের মধ্যে সমর্থন চূড়ান্ত করা হবে বলে জানানো হয়েছে। এর মধ্যেই মঙ্গলবার এক আলোচনা সভায় নৌমন্ত্রী শাজাহান খান সিটি নির্বাচনে শেষ পর্যন্ত বিএনপি থাকা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেন। তার দাবি, ‘লেভেল প্লেয়িং ফিল্ডের’ অজুহাত তুলে সরে দাঁড়াতে পারে বিএনপি। সিটি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর আড়াই মাস ধরে দলীয় কার্যালয়ে অবস্থানরত খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করে অধ্যাপক এমাজই প্রথম বিএনপির নির্বাচনে অংশ নেওয়ার ইঙ্গিত দেন। বিএনপি সমর্থক ফোরাম ‘শত নাগরিক কমিটির’ আহ্বায়ক এমাজউদ্দীনের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল সিইসির সঙ্গে দেখা করে সব দলের জন্য সমান সুযোগ প্রতিষ্ঠা করার আহ্বান জানান। বিরোধী জোট সমর্থক প্রার্থীদের মামলার হয়রানি ঠেকাতে ইসির পদক্ষেপও চেয়েছিলেন তারা। তবে নির্বাচন কমিশনার মো. শাহনেওয়াজ মঙ্গলবারই বলেছেন, আসামি গ্রেপ্তারের ক্ষেত্রে পুলিশকে বাধা দেওয়ার কোনো এখতিয়ার তাদের নেই। এমাজউদ্দীনের সঙ্গে খালেদার সঙ্গে দেখা করতে যাওয়া অধ্যাপক মাহবুব উল্লাহ এই বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে বলেন, এটা তো আদালতেরই বিষয়। এর মধ্য দিয়ে আগের অবস্থান থেকে আরও বিএনপির আরও নমনীয় হওয়ার প্রকাশ ঘটেছে। অধ্যাপক এমাজ ও অধ্যাপক মাহবুব উল্লাহর সঙ্গে আরও ছিলেন অধ্যাপক আ ফ ম ইউসুফ হায়দার, অধ্যাপক সুকোমল বড়ুয়া, টিভি আলোচক মাহফুজউল্লাহ, প্রকৌশলী আ ন হ আখতার হোসেইন, অ্যাডভোকেট ফাহিমা নাসরিন মুন্নী। নির্বাচনে সবার জন্য সমান সুযোগ তৈরির পরিবেশ তৈরির ওপর জোর দিয়ে অধ্যাপক এমাজ বলেন, “তা তৈরি করা না হলে বর্তমান নির্বাচন কমিশনকেই ভোটররা ঘৃণা করতে শুরু করবে। “আসন্ন সিটি নির্বাচন নিয়ে ম্যাডামের সঙ্গে বিস্তারিত কথা হয়েছে। আমরা আশা করছি, নির্বাচন কমিশন সুন্দরভাবে সিটি নির্বাচন অনুষ্ঠানে সঠিক ‍ভূমিকা পালন করবে।” এই নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তারা ইতোমধ্যে আশ্বাস দিয়েছেন, কোনো প্রার্থীর প্রতি কোনো ধরনের পক্ষপাত করবেন না তারা।

ছবি

Plz visit my side www.abdulmalekshuvo.blogspot.com

ছবি
www.abdulmalekshuvo.blogspot.comwww.abdulmalekshuvo.blogspot.com

H.S.C.EXAM 2015 About 11 lakh students are appearing for the Higher Secondary Certificate (HSC) and equivalent exams, which begin today (Wednesday) amid the continuing political unrest, including blockade and agitation. The Education Ministry ventured to hold the exams defying the hartal and blockade, enforced by the BNP-led 20-party alliance. But it had played safe during the Secondary School Certificate (SSC) and equivalent exams, saying it was a matter of security of the examinees. The ministry assured the examinees that law enforcers will keep them under surveillance while they are on the way to the exam centres. During the SSC exams, the ministry had said that law enforces would be deployed to provide security to the examinees, but later backtracked considering the security of the 15 lakh students. Education Minister Nurul Islam Nahid, said in a statement yesterday (Wednesday) that the BNP-led alliance would have to bear the responsibility if any examinee faces trouble because of its movement. “I want to make it clear that if any examinee suffers any loss, they (BNP-led alliance) will have to take the responsibility. People will not pardon you,” he said. He said: “The examinees are not the children of any specific party. They are the future of the nation. Allow them to sit for the exams peacefully. Please, don’t do anything irrational.” Wishing the examinees, he said law enforcers will keep surveillance so that they can go to the exam centres safely. . The SSC exams were scheduled for one month, but continued for two months as the ministry could not hold the exams as per routine due to hartal. All the exams were held on holidays – Fridays and Saturdays. But regarding the HSC exams, the minister said: “If the HSC exams are held only on Fridays and Saturdays, it would take four to five months to complete, which is not possible.” About holding of exams amid hartal, he said: “Showing respect to the opinions and suggestions, the ministry has decided to hold the exams as per routine under any circumstances as it was the demand of all -- examinees, guardians and teachers. There is no alternative to it.” Although the BNP-led alliance called a 48-hartal on Monday and again on Tuesday, it extended the hartal till 6:00am on Friday. Despite the assurance from the Education Ministry, the HSC examinees are feeling insecure. Fariha Akhter, an examinee of the Agargaon Taltola Govt. Colony High School and Girls' College said: “We are in a state of panic. If the exams are held amid hartal and if any untoward incident occurs, who will take the responsibility? But we want all our exams completed in time.” A total of 10,73,884 examinees are likely to take part in the exams at 8,305 educational institutions under 10 education boards. The number was 11,41,374 in 2014. Of the examinees, 5,70,993 are boys and 5,02,891 girls.

ছবি

H.S.C Exam studying 1.073 মোট 884 ছাত্র এই নিতে হবে 305 শিক্ষাবিষয়ক 2,419 কেন্দ্রে বছরের পরীক্ষা প্রতিষ্ঠান. পরীক্ষা 1om সকাল 10 টা থেকে অনুষ্ঠিত হবে বুধবার. এই বছর এর বেশী গ্রহণ ছাত্র সংখ্যা মাধ্যমিক পরীক্ষার 67.490 দ্বারা বাদ করেনি. শিক্ষা মন্ত্রণালয় মুলতবি করতে বাধ্য করা হয়েছে করা ছিল যে 368 এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার 16 দিন ধরে অনুষ্ঠিত হয়. তাদের মধ্যে অনেক শুক্রবার এবং শনিবার অনুষ্ঠিত হয়েছে ছুটির ছুটির দিন. বিএনপি ও তার জোটের একটি প্রয়োগ করা হয়েছে একটানা পরিবহন অবরোধ 5 জানুয়ারির পর থেকে এবং সবচেয়ে মাধ্যমে কাজের দিন হরতাল ঘোষণা ফেব্রুয়ারী এবং মার্চ একটি অন্তর্বর্তীকালীন জন্য টিপুন নির্বাচনে. শিক্ষা মন্ত্রণালয় তার আগে ঘোষণা এইচএসসি পরীক্ষা, এমনকি যদি অনুষ্ঠিত হবে যে বিএনপি হরতাল কর্মসূচি দিয়ে জিদ ছিল. প্রথম কোন সাধারণ ধর্মঘট আছে, যদিও পরীক্ষার দিন, ছাত্র এবং তাদের অভিভাবকরা তবুও ভীত. আট শিক্ষাগত এর 886.933 ছাত্রদের একটি মোট বোর্ড 84.360, যখন এইচএসসি পরীক্ষা নিতে হবে মাদ্রাসা অধীনে আলিম পরীক্ষা নিতে হবে বোর্ড. এইচএসসি বিএম / ভোকেশনাল পরীক্ষার দ্বারা গ্রহণ করা হবে 98.247 ছাত্র এবং অন্য 4,344 পরিচর্যা করা হবে টাকাপয়সা পরীক্ষা, বৃত্তিমূলক পরীক্ষার জন্য বোঝানো মাদ্রাসা ছাত্র. মোট পরীক্ষার্থীর মধ্যে 570.933 ছেলেদের এবং 502.891 মেয়ে. সাত কেন্দ্র বিদেশে 241 জন্য পরীক্ষা রাখা হবে ছাত্র - যাদের, 110 পুরুষ এবং 131 মহিলা, শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ আছে বলেন. এই বছর, সৃষ্টিশীল প্রশ্ন সেট ব্যবহার করা হবে বাংলা, রসায়ন, পদার্থবিজ্ঞান সহ 25 বিষয়, রসায়ন, ইতিহাস এবং ইসলামের ইতিহাস, বলেন তিনি. অক্ষমতা সঙ্গে ছাত্রদের 20 অতিরিক্ত পেতে হবে মিনিট সাহায্যে পরীক্ষা সম্পন্ন করার জন্য তাদের ব্যবস্থার শিক্ষকরা নাহিদ বলেন,.

ছবি

সিটি নির্বাচন থেকে সরে আসবে না বিএনপি : এমাজউদ্দীন আহমেদ সিটি নির্বাচন থেকে বিএনপির সরে আসার কোন প্রশ্নই আসেনা বলে জানিয়েছেন বিএনপিপন্থী শত নাগরিক কমিটির নেতৃত্বদানকারী ঢাবির সাবেক ভিসি প্রফেসর ড. এমাজউদ্দীন আহমেদ। মঙ্গলবার রাতে বিএনপি চেয়ারপরসনের গুলশান কার্যালয়ে খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে প্রফেসর ড. এমাজউদ্দীন আহমেদ এ কথা বলেন । তিনি বলেন, প্রার্থীরা সুষ্ঠুভাবে প্রচারণা যাতে চালাতে পারে আশা করবো এ ব্যাপারে নির্বাচন কমিশন ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে। আসামিদের গ্রেপ্তারে ইসির অনুমতি লাগবে না নির্বাচন কমিশনের এমন বক্তব্যের প্রেক্ষিতে শত নাগরিক কমিটির আহ্বায়ক বলেন, ‘সব কিছু আইন অনুযায়ী হবে বলেই আশা রাখছি।’ এ সময় হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে তিনি বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন যদি সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষতা বজায় রাখতে না পারে, তাহলে জনগণ তাদের ক্ষমা করবে না।’ এমাজউদ্দীন আরো বলেন, নির্বাচন কমিশন যদি সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষতা বজায় রাখতে না পারে তাহলে জনগণ তাদের ধিক্কার জানাবে। এ প্রতিনিধি দলে অন্যান্যদের মধ্যে ছিলেন- ড. মাহবুব উল্লাহ, ড. সুকোমল বড়ুয়া, ড. মাহফুজ উল্লাহ, আ ফ ম ইউসুফ হায়দার, প্রকৌশলী আ ন হ আকতার হোসেন ও অ্যাডভোকেট ফাহিমা নাসরীন। সেখানে আরো উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান

ছবি

৪৮ দিন পর অবশেষে শেষ হয়েছে বিশ্বকাপ। ক্ষণে ক্ষণে কত মুহূর্তেরই তো জন্ম দিয়ে গেছে ৪৮ দিনব্যাপী এই টুর্নামেন্ট। চাইলেই বাংলাদেশও বেছে নিতে পারে নিজেদের স্মরণীয় মুহূর্তগুলো। এমনকি শীর্ষস্থানীয় আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা এএফপির বেছে নেওয়া সেরা মুহূর্তগুলোর মধ্যেও স্থান পেয়েছে বাংলাদেশ দলের একটি উদ্যাপনের কথা। ভারতের বিপক্ষে কোয়ার্টার ফাইনালের ম্যাচটিতে অজিঙ্কা রাহানেকে আউট করার পর মাশরাফি-তাসকিনের সেই উদ্যাপনটা নিশ্চয়ই চোখে লেগে আছে ক্রিকেট প্রেমীদেরও। রাহানেকে আউট করার পর পরই তাসকিনের দিকে দৌড়ে আসেন অধিনায়ক মাশরাফি। তারপর লাফ দিয়ে বুকে-বুকে ধাক্কা দিয়ে দুজন দিকে পড়ে যান। উদ্যাপনের ভঙ্গিটি দেখে এএফপি মাশরাফি-তাসকিনের নাম দিয়েছে বাংলাদেশের 'ব্রায়ান ব্রাদার্স'। উদ্যাপনের এই ভঙ্গিটি প্রথমে জনপ্রিয় করেছিলেন টেনিসের যমজ সহোদর বব ও মাইক ব্রায়ান। তাঁরাও পয়েন্ট পেলে এমন বুকে বুক ঠুকে উদ্যাপন করেন। তাই মাশরাফি-তাসকিনের উদ্যাপনটির এমন নাম দিয়েছে এএফপি। এ ছাড়াও সেই তালিকায় আছে আরও বেশ কিছু মুহূর্তের কথা। ইংল্যান্ড দল নিউজিল্যান্ডের ওয়েলিংটনে পৌঁছানোর পর সেখানকার মেয়র ভুল করে ইংল্যান্ড অধিনায়ক এউইন মরগানকে ডেকেছিলেন ‘এউইন রজার’ নামে। সে ঘটনারও উল্লেখ আছে তালিকায়। পরে মরগান মজা করে বলেছিলেন, ‘আমাকে আরও বিচিত্র নামে ডাকা হয়ে থাকে। মেয়র তো আমার নামের কঠিন অংশটিই ঠিকঠাক ভাবেই বলেছেন।’ ক্রিস গেইলের ডাবল সেঞ্চুরিটাকে এএফপি নাম দিয়েছে ‘টুইটার প্রতিশোধ’। ঘটনাটি হলো, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ডের প্রেসিডেন্ট ডেভ ক্যামেরন একজন ক্যারিবীয়- ভক্তের টুইট পুনরায় পোস্ট করেছিলেন। যেটাতে লেখা ছিল গেইলকে যেন একটি অবসর প্যাকেজ দিয়ে ক্রিকেট থেকে বিদেয় করে দেওয়া হয়। তারপরের ম্যাচেই গেইল জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ২১৫ রানের সেই অতিমানবীয় ইনিংসটি খেলেন। আইরিশ ব্যাটসম্যান এড জয়েসের ‘বেঁচে যাওয়ার’ কথাও আছে সেই তালিকায়। আরব আমিরাতের বিপক্ষে একবার বল স্টাম্পে আঘাত করে। কিন্তু স্টাম্পের গায়ের বাতিগুলো জ্বলে উঠলেও বেল না পড়ার কারণে আউট দেওয়া যায়নি। গ্রুপ পর্বে বাংলাদেশ আর নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার ম্যাচটিতে বেড়ে গিয়েছিল পোকার আধিক্য। যন্ত্রণার মাত্রা এতটাই বেড়ে গিয়েছিল যে শেষমেশ মাঠের বাইরে থেকে আনানো হয় পোকা নিরোধক বিশেষ স্প্রে। এই ঘটনার উল্লেখও আছে সেই তালিকায়। কোয়ার্টার ফাইনালে পাকিস্তান-অস্ট্রেলিয়ার ম্যাচে লড়াই জমে উঠেছিল পেসার ওয়াহাব রিয়াজ এবং ব্যাটসম্যান শেন ওয়াটসনের মধ্যে। ওয়াহাব রিয়াজের সেই দুর্দান্ত ওভারটির উল্লেখও আছে সেই মুহূর্তগুলোর মধ্যে। এ ছাড়া সেই তালিকায় স্থান পেয়েছে ট্রফি হাতে নিয়ে ক্লার্কের বিদায়, ডাইভ দিয়ে একটি বাউন্ডারি বাঁচাতে গিয়ে পাকিস্তানি পেসার ইয়াসির শাহের ট্রাউজার খুলে যাওয়ার মতো ঘটনাগুলো। আরেকটি মজার ঘটনার এএফপি নাম দিয়েছে ‘দক্ষিণ আফ্রিকানের হাতেই খুন দক্ষিণ আফ্রিকা’! সেমিফাইনালে দক্ষিণ আফ্রিকার হেরে যাওয়ার কথা তো জানেন নিশ্চয়ই। আর সেদিন প্রোটিয়া বধের নায়ক ছিলেন গ্রান্ট এলিয়ট। যেই গ্রান্ট এলিয়টের জন্মই কিনা দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গে!

ছবি

★বাংলাদেশ-দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের সময়সূচি★ আগামী জুলাই মাসে টাইগারদের সঙ্গে দুটি টি-টুয়েন্টি, তিনটি ওয়ানডে ও দুটি টেষ্ট খেলতে বাংলাদেশে আসবে দক্ষিণ আফ্রিকা। নিচে বাংলাদেশ-দক্ষিণ আফ্রিকার খেলার সময়সূচি দেয়া হল: টি-টুয়েন্টি, জুলাই মাসের ৫ তারিখ, রোববার, প্রথম টি-টুয়েন্টি (মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়াম) ৭ তারিখ, মঙ্গলবার, দ্বিতীয় টি- টুয়েন্টি (মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়াম) ওয়ানডে, জুলাই মাসের ১০ তারিখ, শুক্রবার, প্রথম ওয়ানডে (মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়াম) ১২ তারিখ, রোববার, দ্বিতীয় ওয়ানডে (মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়াম) ১৫ তারিখ, বুধবার, তৃতীয় ওয়ানডে (মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়াম) টেষ্ট, জুলাই মাসের ২১-২৫ তারিখ, মঙ্গলবার থেকে শনিবার-সকাল ৯:৩০ মিনিটে (জুহুর আহমেদ স্টেডিয়াম চট্রগ্রাম) ৩০ জুলাই থেকে ৩ আগস্ট, বৃহস্পতিবার থেকে সোমবার-সকাল ৯:৩০ মিনিটে (মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়াম)

ছবি

বিশ্বকাপ ক্রিকেটের ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচ নিয়ে নিজেদের পর্যবেক্ষণ আইসিসিতে পাঠিয়েছে বিসিবি। বিসিসির সিইও নিজাম উদ্দিন আহমেদ বিবিসির কাছে এ সংবাদের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। এদিকে ওই ম্যাচে 'বাজে আম্পায়ারিংয়ে'র বিরুদ্ধে আইসিসিতে আপিল করতে বিসিবি সভাপতি সহ সংশ্লিষ্টদের লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের একজন আইনজীবী। একি সাথে নোটিশ দেয়া হয়েছে ক্রীড়া সচিব ও বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের ম্যানেজারকেও। ওই আইনজীবীর মতে বাংলাদেশ ভারত ম্যাচের আম্পায়ার ইয়ান গোল্ড ও আলিম দার তিনটি ভুল সিদ্ধান্ত দিয়েছিলেন তামিম ইকবাল ও মাহমুদুল্লাহর আউট এবং রুবেল হোসেন একটি বলকে নো-বল কল করে। তার দাবি, “তামিম ও মাহমুদুল্লাহ আসলে আউট ছিলেননা। রোহিত শর্মাকে করা রুবেল হোসেনের ওই বলটিও নো-বল ছিলনা”। ঢাকায় সমর্থকদের প্রতিবাদ মিছিল বিশ্বকাপের দ্বিতীয় কোয়ার্টার ফাইনালের ওই ম্যাচের বাংলাদেশ ভারতের বিপক্ষে ১০৯ রানে পরাজিত হয়েছিলো। পরে আইসিসি সভাপতি আ হ ম মোস্তফা কামাল নিজেও ওই ম্যাচের আম্পায়ারিং নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন।

ছবি

বাজে আম্পায়ারিংয়ে ক্ষুব্ধ আইনজীবী, পাঠালেন নোটিশ! সেই নো বল। ইয়ান গোল্ড ও আলিম দার। ফাইল ছবিবাংলাদেশ-ভারত কোয়ার্টার ফাইনালে বাজে আম্পায়ারিংয়ে নিয়ে তুমুল হইচই ক্রিকেট দুনিয়ায়। বিশ্বকাপ শেষ হলেও ঘটনার রেশ এখনো কাটেনি। সর্বশেষ, আম্পায়ারদের শাস্তির পাশাপাশি ক্ষতিপূরণ চেয়ে আইসিসিতে আপিল দায়ের করতে আজ বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ম্যানেজার, ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি ও ক্রীড়া সচিবকে নোটিশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মো. ইউনুস আলী আকন্দ। বিসিবি অবশ্য জানিয়েছে, এরই মধ্যে আপিল করা হয়েছে। সেদিন ৪০তম ওভারে রোহিত শর্মাকে করা রুবেল হোসেনের বল ‘নো’ ডাকেন আম্পায়ার আলিম দার ও ইয়ান গোল্ড। পরে টিভি রিপ্লেতে দেখা যায়, রুবেলের বলটা কিছুতেই ‘নো’ ছিল না। প্রশ্ন ওঠে মাহমুদউল্লাহর আউট নিয়েও। এ ছাড়া মাশরাফি বিন মুর্তজার করা ৩৪তম ওভারে সুরেশ রায়নার আউট হওয়া-না হওয়া নিয়েও প্রশ্নের অবকাশ রয়েছে। সব মিলিয়ে আম্পায়ারদের বিতর্কিত সিদ্ধান্তে ক্ষোভে ফেটে পড়ে বাংলাদেশ। সে ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে আম্পায়ারদের শাস্তির পাশাপাশি ক্ষতিপূরণ চাইতে উল্লিখিত তিন ব্যক্তিকে নোটিশ দিয়েছেন আইনজীবী ইউনুস আলী। অবশ্য ম্যাচের পরই বিসিবি জানিয়েছিল, এ ব্যাপারে আইসিসির কাছে আপিল করা হবে। এমনকি আইসিসি সভাপতি আ হ ম মুস্তফা কামাল পর্যন্ত বাজে আম্পায়ারিংয়ের বিরুদ্ধে ক্ষোভ ঝাড়েন। তা নিয়েও তুমুল আলোচনা। উকিল নোটিশ প্রসঙ্গে বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী দুপুরে প্রথম আলোকে বললেন, ‘নোটিশের ব্যাপারে শুনেছি। কিন্তু আমরা তো ম্যাচের পরপরই আম্পায়ারের কয়েকটি সিদ্ধান্তের ব্যাপারে আইসিসির কাছে আপিল করেছি। তা ছাড়া আমাদের প্রতিবাদ এরই মধ্যে দেখেছেন।’ বিসিবির আপিলের পরিপ্রেক্ষিতে আইসিসি কী কী উদ্যোগ নিতে পারে? বিসিবির প্রধান নির্বাহী বললেন, ‘সেটা ঠিক বলতে পারব না। ওই আম্পায়ারদের পরে কোনো ম্যাচে দায়িত্ব পালন করতে দেওয়া হবে কি হবে না, সেটাও আইসিসির ব্যাপার। আসলে প্রত্যেকটা ম্যাচ বা টুর্নামেন্টের পর বল টু বল সিদ্ধান্ত পর্যালোচনা করা হয়। তখন ভুলের হার দেখা হয়। কোয়ার্টার ফাইনালের সেই ম্যাচে কী কী ভুল ছিল, তা নিশ্চয় বের হবে এবং সে অনুযায়ী আইসিসি সিদ্ধান্ত নেবে। তবে যা-ই হোক, ম্যাচের ফলে তো আর পরিবর্তন আসবে না।’

ছবি

The current government is illegitimate and illegal terrorist looter after sitting down upon the nation's corrupt and dictatorial power over the conduct of ministers, lawmakers and law enforcement officials are constantly abusing the people's movements and ganadabi and blatantly false statement is the one of the shelter. We want to say clearly on the outside of the lion-cage as easy to dig, dig on the free lion is not so simple. League illegal manner with the people in power are not the laughing stock of the non-party caretaker government under ganadabi arrangements of people in Qatar's national elections, but was enough to see the volcano and the throne of your power to spark the combustion flame burned dust is mixed. There is still time to make the initiative to overcome the discussion of this great disaster, the human person, freedom of speech and democratic rights of all the back to restore normalcy in the country. 71 People's Liberation War otherwise become inflamed and is ready to sacrifice anything to realize their demands.

ছবি

দুরে দুরে থাকা মানেই দুরত্ব বেশি নয়, কাছাকাছি থাকলে হয়তো থমকে যেত এ সময়। বাতাস বলে এসেছিলে স্বপ্ন ছুয়েছি তোমাকে তোমার স্পর্শ আছে ঘিরে অচেনা এই কোলাহল। পেতে চাই তোমায় নীরব ভোরে, শিশির ভেজা সবুজ ঘাসে, পেতে চাই তোমায় অস্থিরতায়, অসম্ভবের শেষ সীমান্তে।

ছবি
Abdulmalekshuvo.blogger. com

2GB night time free 3G Internet will beactivated within 72 hours of exact 29 taka recharge. The Validity of 3G Night time Internet package will be expired along with the offer (Maximum 28 days since activation). 2GB Internet usage time is 12:00 AM to 10:00 AM with the validity. From 10:01 AM to 11:59 PM Internet usage fee of BDT 0.50/MB is applicable. Fair Usage policy will be applicable after consumption of 2GB Recharged 29taka will add up in the main account for any purpose usage. In addition to that customers will be able to enjoy 1 paisa /second (24 Hours) call rate to any local number. Special Tariff is applicable to any local number (on-net & off-net, PSTN and mobile) During the offer period, this special tariff (1 paisa /second (24 hours) call rate to any local number) will be applicable over regular package tariff , Super FnF, FnF and All rate cutters like ( Nishchinto rate Cutter, 7 Paisa offer) and My Zone discounts will not be applicable over special tariff. Special tariff is not applicable on Procured minutes, Bonus minutes. Emergency Balance Bonus Minutes and bonus amounts will be consumed first. Special Tariff offer can be availed multiple times during the duration of the campaign. on multiple recharges, longer validity will prevail The special tariff will have a validity of 4 days including the day of recharge. Customer will be able to check the special tariff validity offer validity by dialing *566*32#. After the special tariff validity period, the previous offer/package will reapply Disconnected pre-paid customers need to reactive 1 through scratch card then will be able to enjoy free bonus by recharging 29 taka recharge. To unsubscribe the special tariff offer SMS “S29” to 9999 Auto renewal applicable on 2GB free Night time Internet . To stop auto renewal feature, write OFF & Send to 5000 number. (SMS charge Free) To check the usage 3G Internet volume and validity, dial *567# Maximum Internet speed will be 2 Mbps for free Internet. Average likely speed will depend on multiple factors such as handset used, website visited, time, place and distance from BTS etc. Internet speed only applicable for area which falls under 3G coverage zone. As all the customers will enjoy Free 2GB Internet offer , 29MB Free will not be added with the 2GB data offer. 15 % VAT applicable.

ছবি
বর্তমান অবৈধ এবং লুটেরা সন্ত্রাসী সরকার অবৈধ পন্থায় জাতির ঘাড়ে চেপে বসার পর স্বৈরতান্ত্রিক আচরণের মাধ্যমে দুর্নীতিবাজ ও ক্ষমতালোভী মন্ত্রী-এমপি ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কর্তাব্যক্তিরা প্রতিনিয়ত জনগণের আন্দোলন ও গণদাবী নিয়ে কটুক্তি ও নির্জলা মিথ্যাচারের আশ্রয় নিয়ে বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন। আমরা স্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই-খাঁচায় বন্দী সিংহের গায়ে খোঁচা দেয়া যত সহজ, মুক্ত সিংহের গায়ে খোঁচা দেয়া ততো সহজ নয়। অবৈধ ও বাকশালী পন্থায় ক্ষমতায় থেকে জনগণের সাথে মশকরা না করে গণদাবী অনুযায়ী নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার ব্যবস্থার অধীনে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা করে গণমানুষের কাতারে আসুন, তখন দেখবেন জনরোষের আগ্নেয়গিরি ও স্ফুলিঙ্গের দহনে কিভাবে আপনাদের ক্ষমতার মসনদ জ্বলে পুড়ে ধুলায় মিশিয়ে যায়। এখনও সময় আছে- আলোচনার মাধ্যমে জাতীয় এই মহাসংকট উত্তরণে উদ্যোগী হোন, মানুষের বাক-ব্যক্তি স্বাধীনতাসহ সকল গণতান্ত্রিক অধিকার ফিরিয়ে দিয়ে দেশে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরিয়ে আনুন। অন্যথায় ৭১ এর মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্দীপ্ত হয়ে জনগণ তাদের দাবী আদায়ে যেকোনো ত্যাগ স্বীকারে প্রস্তুত রয়েছে। http://abdulmalekshuvo.blogspot.com/2015/…

My... Pic photo..??

ছবি

Me .??? Photo..?? Plz visited my link

ছবি

Lotus kamal talking. About ICC

ছবি
আইসিসির সভাপতি আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, তাকে ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত করেছে সংস্থাটির পরিচালনা পর্ষদ। দেশে ফিরে আইসিসির কুকীর্তির গোমর ফাঁস করার হুমকিও দিয়েছেন তিনি। ২০১৫ সালে করা নিয়ম অনুযায়ী বৈশ্বিক প্রতিযোগিতাগুলোয় ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থার সভাপতিরই ট্রফি দেওয়ার কথা। সেটা না মেনে রোববার অস্ট্রেলিয়া দলের অধিনায়ক মাইকেল ক্লার্কের হাতে ট্রফি তুলে দেন আইসিসির চেয়ারম্যান নারায়ণস্বামী শ্রীনিবাসন।গত রোববার মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডের ফাইনাল শেষে এর প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে কামাল বাংলাদেশের দুটি টিভি চ্যানেলে আইসিসির বিরুদ্ধে তার সম্মানের হানি ঘটানোর অভিযোগ তোলেন।আগামী বুধবার দেশে ফেরার কথা বাংলাদেশের পরিকল্পনা মন্ত্রী কামালের। দেশে ফিরে ক্রিকেটের সার্বিক বিষয় নিয়ে বিমানবন্দরেই কামাল কথা বলবেন বলে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান পরিকল্পনা মন্ত্রনালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা তাপস চন্দ্র বোস।দেশে ফিরে কামাল আইসিসির পরিকল্পনা পর্ষদের নানা বিষয় উন্মোচন করবেন বলে ইঙ্গিত দেন।"আজ (রোববার) ট্রফি আমার দেওয়ার কথা ছিল। এটা আমার সাংবিধানিক অধিকার। কিন্তু দুর্ভাগ্যক্রমে, আমাকে সেটা করতে দেওয়া হ…

See it in below......

ছবি
ছবি
ছবি
ছবি

The Newsland team

Hello world

ছবি
Colour, passion and excitement