সোমবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৭

My Dreams : এই ২০ টি গুণের অধিকারী হয়ে থাকলে আপনি একজন বিরল মা...

My Dreams : এই ২০ টি গুণের অধিকারী হয়ে থাকলে আপনি একজন বিরল মা...: পৃথিবীতে সকলে একরকম হবে না আর সেটাই খুব স্বাভাবিক। কিন্তু হ্যাঁ, আমাদের সর্বদাই জানতে ইচ্ছে করে নিজের ব্যক্তিত্বের নানান রকমের বিষয় সম্পর্...

এই ২০ টি গুণের অধিকারী হয়ে থাকলে আপনি একজন বিরল মানুষ!

পৃথিবীতে সকলে একরকম হবে না আর সেটাই খুব স্বাভাবিক। কিন্তু হ্যাঁ, আমাদের সর্বদাই জানতে ইচ্ছে করে নিজের ব্যক্তিত্বের নানান রকমের বিষয় সম্পর্কে। আমরা কি খুব গড়পড়তা? নাকি দারুণ কেউ? নাকি আমাদের কারো মাঝেই লুকিয়ে আছে বিচিত্র কোন জটিলতা? আজকের ফিচার তেমনই বিষয়ে। আজ আমরা জানবো বিরল চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের অধিকারী এক রকম ব্যক্তিত্বের ব্যাপারে।

বিচিত্র, জটিল এবং কোন না কোনভাবে দ্বন্দযুক্ত চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য নিয়ে যাদের ব্যক্তিত্ব গড়ে ওঠে তাদের বলা হয়ে থাকে আইএনএফজে (INFJ)। বিরলতম এই চারিত্রিক বৈষিষ্ট্যের অধিকারী মানুষদের মাঝে প্রধানত চার ধরণের গুণাগুণ প্রকাশ পেয়ে থাকে। তারা হয়ে থাকেন অন্তর্মুখী ও প্রবল আবেগী ধরণের মানুষ যাদের মাঝে থাকে সবকিছুর সঠিক বিচার বিশ্লেষণ করার ক্ষমতা। অন্যদিকে নিজের ষষ্ঠ ইন্দ্রিয় বা অনুমানশক্তির ওপরেও দারুণ দখল দেখা যায় তাদের।
সুইস সাইকোলোজিষ্ট ও সাইকোঅ্যানালিষ্ট কার্ল জুং (Carl Jung) তার ‘সাইকোলোজিক্যাল টাইপ’ বইতে মোট ১৬ ধরণের চারিত্রিক ধরণের কথা উল্লেখ করেছিলেন। যার মাঝে এই আইএনএফজে হলো সবচাইতে বিরলতম একটি চারিত্রিক ধরণ। ভাবছেন আপনি নিজেও এই বিরলতম চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের অধিকারী কিনা? খুব সহজ ও স্পষ্ট এই বৈশিষ্ট্যগুলো মিলিয়ে নিন তবে।


১/ একেবারে ছেলেবেলা থেকেই আপনি অন্যরকম অথবা আলাদা বোধ করেন নিজেকে। পরিচিত গণ্ডির সকলের মাঝে থেকেও এমন অনুভূত হয় আপনার। যদিও আপনার অনেক বন্ধু রয়েছে, কিন্তু আপনি কখনোই তাদের মাঝে নিজেকে খাপ খাওয়াতে পারেন না। কখনো কখনো আপনি মিথ্যা অভিনয় করেন যেন তারা আপনাকে বন্ধু হিসেবে গ্রহণ করেন।

২/ আপনি সত্যিকার অর্থেই মানুষের জীবন সম্পর্কে জানতে চান। এই জানতে চাওয়া মানে এই নয় যে, গেলো ছুটির দিনে তারা কী করেছেন অথবা সর্বশেষ কী কেনাকাটা করেছেন। আপনি তাদের জীবন সেই কথাগুলো জানতে চান, যা অন্য কেউ জানেন না। আপনার সামনে বসে থাকা মানুষটা আসলে কী ভাবছেন? সে আসলে অনেক অনুভব করছেন? মিথ্যা মুখোশ দ্বারা কেউ আপনাকে সহজে বোকা বানাতে পারেন না।

৩/ যে কোন কিছু নিয়েই অনেক আটঘাট বেঁধে পরিকল্পনা করার পরিবর্তে হালকাভাবে পরিকল্পনা করার দিকে অথবা একেবারেই কোন পরিকল্পনা না করার দিকেই আপনার আগ্রহ বেশী।

৪/ আপনার কাছে যখন কেউ তাদের ব্যক্তিগত জীবনের সমস্যা নিয়ে আসেন, আপনি নিজ থেকে কোন উপদেশ কিংবা মতামত দেন না। এর পরিবর্তে আপনি তাদেরকে সাহায্য করার জন্য এবং আরও ভালোভাবে বোঝার জন্য প্রশ্ন করেন, তাদের অবস্থা সম্পর্কে জানতে চান এবং তাদের অনুভূতি বোঝার চেষ্টা করেন। মাঝে মাঝে তাদের অবস্থার সাথে মিল আছে এমন কোন ঘটনা তাদেরকে বলেন, যা আপনার জীবনে ঘটেছিল। আপনি অনুভব করতে পারেন যে, তাদের কোন পথ বেছে নেওয়া উচিৎ। কিন্তু আপনি কখনো চান না আপনার উপদেশের কারণেই তারা সেই পথটি বেছে নিক। কারণ, আপনি চান এটা তাদের নিজের সিদ্ধান্ত হোক।

৫/ আপনি একইসাথে অনেক বেশী চুপচাপ ও অন্তর্মুখী, অন্যদিকে আনন্দ-উল্লাস করতেও পছন্দ করেন। এই সকল কিছুই নির্ভর করে আপনার মনের অবস্থা, ইচ্ছা, শক্তি এবং সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ হলো কাদের সাথে আপনি থাকবেন তার উপরে।

৬/ আপনি একা থাকতে পছন্দ করেন, কিন্তু খুব বেশী সময়ের জন্য একা থাকাও আপনার জন্য সম্ভব নয়। দিনশেষে আপনাকে ঠিকই ‘আপন মানুষ’-দের সাথে আবারো মিশতে হয়। এই ‘আপন মানুষ’ হলেন তারা, যারা আপনার খুব ভালো বন্ধু এবং আপনাকে বুঝতে পারেন। তাদের সাথে গভীর কথাবার্তাগুলো হয় একেবারে অমূল্য। একইসাথে তাদের সাথে সময় কাটালে মানসিক শক্তি বেড়ে যায় অনেকখানি।

৭/ যারা বারবার কষ্ট দেয়, তাঁদেরকে জীবন থেক আজীবনের জন্য বাদ দিয়ে দেওয়ার প্রবণতা রয়েছে আপনার মাঝে। কিন্তু ব্যাপারটা এমন নয় যে, জীবন থেকে এমন মানুষদের সরিয়ে দিতে আপনি আনন্দ পান। বরঞ্চ এমনটা আপনাকে করতে হয় নিজেকে রক্ষা করার তাগিদেই! বাইরে থেকে দেখলে মনে হবে যে আপনি খুব শক্ত মানসিকভাবে। কিন্তু ভেতরে ভেতরে আপনি খুব বেশী স্পর্শকারত একজন মানুষ। বিশেষ করে অন্য মানুষের নেতিবাচক কথা ও কাজ আপনার উপরে খুব সহজেই প্রভাব ফেলে থাকে।

৮/ মাঝে মাঝে আপনি অন্যকে খুশি ও সুখী করার জন্য এতো বেশী চেষ্টা করেন যে, নিজের খুশি ও আনন্দের ব্যাপারে একেবারেই ভুলে যান!

৯/ আপনি খুব সূক্ষ্মভাবে অনুভব করতে পারেন কেউ কেমন বোধ করছেন এবং আপনি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করেন যে তার কী প্রয়োজন আপনি জানেন! হ্যাঁ, সবসময় আপনি একদম সঠিক হন না। তবে বেশীরভাগ ক্ষেত্রেই আপনার ধারণা মিলে যায়।

১০/ আপনি বিশ্বাস করেন যে, ধরা-বাঁধা কাজকর্ম করার চাইতেও আপনি অনেক ভালো কিছু করার জন্য পৃথিবীতে এসেছেন। আপনি মানুষকে সাহায্য করতে চান এবং এই পৃথিবীটাকে একদম বদলে ফেলতে চান- শুধুমাত্র বেতনের একটি চেক পেতে চান না। সমস্যা হচ্ছে, আপনি নিজেও জানেন না যে সেই ‘বিশেষ উদ্দেশ্য’টা আসলে কী! আপনার ভেতরে সেই উদ্দেশ্যটা খোঁচালেও আপনি জানেন না কীভাবে সেটা অর্জন করা সম্ভব!

১১/ আপনি সবসময় অনুভব করেন যে জীবনে আপনার আরও অনেক ভালো কিছু করার রয়েছে। যার ফলে সবসময় নিজেকে আরো বেশি উন্নত করার মতো চেষ্টা করেন আপনি। যেমন: স্বাস্থ্যকর খাদ্য রান্না করা, নিজেকে আরও পরিপাটি ভাবে কীভাবে গুছিয়ে তোলা যায় ইত্যাদি শেখা। কখনো কখনো আপনি নিজেকে অনেক বেশী চাপ দেন একটি ‘পারফেক্ট’ জীবন পাওয়ার জন্য।

১২/ মাঝে মাঝে আপনি নিজেকে রক্ষা করার জন্য মানুষের মন যুগিয়ে চলা শুরু করে দেন। যেহেতু আপনি খুব অনুভূতিশীল, সেহেতু অন্যের কটু কথা বা সমালোচনা আপনার উপরে প্রভাব ফেলে দেয়। আপনি ভাবতে শুরু করেন, যদি আপনি তাদেরকে সন্তুষ্ট রাখতে পারেন তবে তারা আপনার সমালোচনা করবে না।

১৩/ কোন একটি ঘরের ভেতর দিয়ে হেঁটে গেলে আপনি তৎক্ষণাৎ সেই ঘরের আবহাওয়া ধরতে পারেন। সহজে বলতে গেলে, আপনার আশেপাশের মানুষদের অনুভূতি আপনি ধরতে ও বুঝতে পারেন। তারা উত্তেজিত হলে আপনিও উত্তেজিত হন, তারা দুশ্চিন্তা করলে আপনিও দুশিন্তা করেন। যে কারণে আপনি সবসময় সকলকে শান্ত করতে চেষ্টা করেন। যেন তাদের অনুভূতি আপনার মাঝেও সংক্রমিত না হয়।

১৪/ আপনি ভালো মানের জিনিসের প্রতি সচেতন। যেটা হতে পারে খাদ্য উপাদান, ভালো জামা-কাপড় অথবা অন্য যে কোন কিছুই। আপনি এই ব্যাপারটা মেনে নিতে যতটাই অপারগ হন না কেন, এটা আপনার কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার। আপনি সুন্দরের মাঝে থাকতে পছন্দ করেন। আপনার রুচি খুবই পরিশীলিত এবং অত্যাধুনিক। তবে আপনি স্বল্প খরুচে। দশটি মাঝারী মানের জামার পরিবর্তে আপনি দুইটি ভালো মানের জামা কিনতেই বেশী ইচ্ছুক।

১৫/ আপনার জীবনের সকল মানুষ সম্পর্কেই আপনি অনেক বেশী যত্নশীল। কিন্তু তারা হয়তো কখনোই আপনার অনুভূতি জানতে পারেননি, কারণ আপনি নিজের অনুভূতিগুলো লুকিয়ে রাখেন। নিজের অনুভূতিগুলো প্রকাশ করতে আপনাকে বেগ পেতে হয়।

১৬/ সাধারণত আপনি ন্যায়বান, চিন্তাশীল ও সচেতন। যারা আপনাকে চেনেন না, তাদের কাছে আপনাকে নিষ্ঠুর বলে মনে হতে পারে।

১৭/ সকলে যখন বিভিন্ন ধরণের গালগপ্প অথবা সেলিব্রিটিদের নিয়ে আলোচনা করতে ব্যস্ত, তখন আপনি নিজে নিজেই অনেক বিষয় নিয়ে চিন্তা করতে থাকেন। বাইরের জগত, টাইম ট্রাভেল, মানুষের চরিত্র ও ধরণ, জীবনের অর্থ প্রভৃতি বিষয়গুলো আপনার মাথায় খেলা করে। এইসকল বিষয় নিয়ে খুব কম সময়েই আলোচনা করেন আপনি। কারণ আপনি ভাবেন, বেশীরভাগ মানুষ আপনাকে বুঝতে পারবে না।

১৮/ নিজের কাজের তালিকা তৈরি করে সেইরূপ কাজ করার প্রতি আপনি অনেক বেশী আগ্রহ বোধ করেন। এক এক করে কাজগুলো শেষ করে চেক করার মাধ্যমে আপনি আনন্দ পান। তবে সকল কাজ শেষ করে ফেলার পরে আপনি খুব বিরক্ত হয়ে পড়েন।

১৯/ কোন বিষয়ে যখন আপনার মাঝে উদ্যম কাজ করে, তখন আপনার পথের মাঝে কোন কিছুই বাঁধা হয়ে দাঁড়াতে পারে না। আইএনএফজের মূলমন্ত্র হচ্ছে- "অসম্ভবকে সম্ভব করার ক্ষেত্রে প্রয়োজনের চাইতে একটু বেশী সময় প্রয়োজন হয় মাত্র।"

২০/ অন্যান্য মানুষের কাছে আপনি খুব বিচক্ষন, বুদ্ধিমান এবং অনেকটাই আত্ম কেন্দ্রিক ধরণের একজন মানুষ। অনেকেই যে কারণে মানসিক সাহায্য ও উপদেশ পাবার আশায় আপনার কাছে এসে থাকে। এমন সময়ে আপনি খুব বিজ্ঞ একজন মানুষের মতো নিজেকে প্রকাশ করেন, যাকে প্রয়োজনের সময়ে সকলের দরকার হয়। তবে অনেক সময় এইসকল কিছু আপনার পক্ষে কষ্টকর হয়ে ওঠে। যেহেতু আপনি অন্তর্মুখী, সেহেতু আপনার ভেতরে প্রবলভাবে মনে হতে থাকে- কেন সকলেই নিজের সমস্যা নিজেই সমাধান করতে পারে না!
এবার বলুন তো, কয়টি গুণ মিলে গেলো আপনার সাথে?
সূত্র: Introvert dear

শনিবার, ২ ডিসেম্বর, ২০১৭

ফেসবুক নতুন ধরনের ক্যাপচা পরীক্ষা চালাচ্ছে। এর মাধ্যমে মানুষের মুখের ছবি দেখে প্রকৃত ব্যবহারকারী, নাকি সফটওয়্যার, তা ধরার চেষ্টা করছে তারা। ফেস ভেরিফিকেশন পদ্ধতিটি ব্যবহারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে কর্তৃপক্ষ।

ফেসবুক ব্যবহারকারী এখন ২০০ কোটির ওপরে। ব্যবহারকারীর নিরাপত্তার বিষয়টিকে এখন বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। ভুয়া ও সন্দেহজনক অ্যাকাউন্টগুলো বন্ধ করতে কাজ শুরু করেছে প্রতিষ্ঠানটি। বিশেষ করে বট বা সফটওয়্যার সৃষ্ট অ্যাকাউন্টগুলো ধরতে ব্যবস্থা নিচ্ছে। কারও অ্যাকাউন্ট সন্দেহজনক মনে হলে ফেসবুক এখন তা প্রকৃত অ্যাকাউন্টের প্রমাণ চাইছে। মুখের ছবি স্পষ্ট দেখা যায়, এমন ছবি আপলোড করতে বলছে।
ফেসবুক নতুন ধরনের ক্যাপচা পরীক্ষা চালাচ্ছে। এর মাধ্যমে মানুষের মুখের ছবি দেখে প্রকৃত ব্যবহারকারী, নাকি সফটওয়্যার, তা ধরার চেষ্টা করছে তারা। ফেস ভেরিফিকেশন পদ্ধতিটি ব্যবহারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে কর্তৃপক্ষ।
গত মঙ্গলবার টুইটার ব্যবহারকারী ফ্লেক্সলিব্রিস একটি স্ক্রিনশট পোস্ট করেন, যাতে নতুন ভেরিফিকেশন পদ্ধতিটি দেখানো হয়। ওই স্ক্রিনশটে দেখা যায়, পরিচয় শনাক্ত করতে মুখের ছবি স্পষ্ট দেখা যায় এমন ছবি আপলোড করতে বলছে। পরিচয় নিশ্চিত করার পর ছবিটি সার্ভার থেকে মুছে ফেলার কথাও বলা হয়েছে।
বিষয়টি নিশ্চিত করে ফেসবুকের এক মুখপাত্র বলেছেন, ছবির ওই পরীক্ষাটি মূলত সন্দেহজনক অ্যাকাউন্টগুলো ধরতে ব্যবহার করা হচ্ছে। বিশেষ করে নতুন অ্যাকাউন্ট খোলার সময়, কারও সঙ্গে যোগাযোগের সময়, নতুন বন্ধুর অনুরোধ করার সময়, বিজ্ঞাপন সংশ্লিষ্ট কাজের সময়েও এ পরীক্ষা দেওয়া লাগতে পারে।
এই পরীক্ষার সময় যে ছবি দেওয়া হবে তা স্বয়ংক্রিয় ও ম্যানুয়াল পরীক্ষা করে দেখা হতে পারে।
গত এপ্রিলেও এ ধরনের ভুয়া অ্যাকাউন্ট ধরার কথা জানিয়েছিল ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। বাংলাদেশের অনেক ব্যবহারকারী হঠাৎ ফেসবুক বন্ধ পান। ওই সময় বাংলাদেশ থেকে তিন দিনে নয় লাখ অ্যাকাউন্ট বন্ধ হয়ে যায়।
ফেসবুক ১২ এপ্রিল এক বিবৃতিতে জানায়, ভুয়া অ্যাকাউন্ট ঠেকানোর কার্যকর উপায় হিসেবে ‘স্প্যাম অপারেশন’ কার্যক্রম হাতে নেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশ, ইন্দোনেশিয়া, সৌদি আরবসহ অন্য কয়েকটি দেশ থেকে আসা ভুয়া লাইক ও মন্তব্য ঠেকাতে এ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। তবে এই কার্যক্রমের মাধ্যমে সব ভুয়া অ্যাকাউন্ট বন্ধ করা সম্ভব হবে না বলে স্বীকার করেছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।
ফেসবুক যদি কারও ছবি যাচাই করার জন্য তা চেয়ে বসে তবে ওই সময় অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেয়। ফলে ব্যবহারকারী আর ফেসবুকে ঢুকতে পারেন না। 
একটি বার্তায় দেখানো হয়, আপনি এখন আর লগ ইন করতে পারবেন না। আপনার ছবি পর্যালোচনা করে দেখে আপনার সঙ্গে যোগাযোগ করা হবে। নিরাপত্তার জন্য এখন আপনি ফেসবুক ব্যবহার করতে পারবেন না।
যাঁদের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়েছে বলে সন্দেহ হবে তাঁরা (Facebook.com/hacked) ঠিকানায় যেতে পারেন। তথ্যসূত্র: এনডিটিভি।

বুধবার, ১৫ নভেম্বর, ২০১৭

পৃথিবীতে প্রতিটা মূহুর্তে, কেউ না কেউ, কারো না কারো জন্য অপেক্ষা করে...!

পৃথিবীতে প্রতিটা মূহুর্তে,
কেউ না কেউ,
কারো না কারো জন্য অপেক্ষা করে...!
কেউ বৃষ্টির জন্য...!
কেউ খাবারের জন্য...!
কেউ প্রিয় মানুষটার জন্য...!
কেউ ছোট্টএকটা মেসেজের জন্য,
কিংবা কারো একটা
ফোন কলের জন্য
অথবা এক মূহুর্তের জন্য
কারো কন্ঠ শোনার জন্য...!!
সব অপেক্ষার
শেষটা মধুর হয় না...!
কখনো
কখনো বৃষ্টি নামে...!
কখনো কখনো মেঘগুলো
ভীষণ ধোঁকা দিয়ে যায়...!
বিকেল গড়িয়ে
সন্ধ্যা নামে...!
পশ্চিমের আকাশে সূর্যটা
টুপ করে ডুবে যায়...!
কেউ কেউ তখনো আকাশের
দিকে তাকিয়ে অপেক্ষা করে...!
হয়তো আসবে - এই আশায়...!
এক সময় মাথার ওপরে
একটা বিশাল চাঁদ ওঠে...!
চাঁদের রূপালি আলো
ঐ মানুষটার মুখের উপর এসে পড়ে...!
ক্লান্ত মানুষটা অপেক্ষা
করতে করতে তখন ঘুমিয়ে পড়েছে...!
তার অপেক্ষা কিন্তু শেষ হয় নি...!
এবার সে চোখ বুজে অপেক্ষা করছে...!
হয়তো সে স্বপ্নে আসবে।
কিন্তু সে বড় নিষ্ঠুর স্বপ্নেও আসে না।


মঙ্গলবার, ৭ নভেম্বর, ২০১৭

মানুষের জীবনধারার সাথে বৃক্ষের জীবনধারার বড্ড বেশী সাদৃশ্য। চর্মচক্ষুকে বড় না ভেবে ।

মানুষের জীবনধারার সাথে বৃক্ষের জীবনধারার বড্ড বেশী সাদৃশ্য।
চর্মচক্ষুকে বড় না ভেবে
কল্পনা আর অনুভূতির চোখকে বড় করে তুললে জীবনের তাৎপর্যটা আমরা খুব সহজেই অনুধাবন করতে পারি।
বৃক্ষের জীবনের গতি ও বিকাশকে উপলব্ধি করা দরকার
নইলে আমাদের জীবনের সার্থকতা আর পরিপূর্ণতার ছবি চোখের সামনে ফুটিয়ে তোলা সম্ভব নয়।
মাটির রস টেনে নিজেকে মোটাতাজা করাতেই বৃক্ষের কাজের পরিসমাপ্তি নয়,
তাকে ফুল ফোটাতে হয়, ফল ধরাতে হয়।
নইলে তার জীবন অসম্পূর্ণ থেকে যায়।
মানুষের ক্ষেত্রেও ঠিক তেমনটাই।
প্রতিটা দিন
লড়াই করে নিজেকে বাঁচিয়ে রাখার মানেই বেঁচে থাকা নয়।
জীবনকে বৃক্ষের মতো ফলে ফুলে সাজানো দরকার কিছু উপলব্ধি আর কিছু ভাল কাজের দ্বারা যা আমাদেরকে বাঁচিয়ে রাখে অন্তত কাল।
কখনো কখনো প্রবল ঝড় হয়, ক্ষতিগ্রস্ত হয় অনেক বৃক্ষ।
কিন্তু তা ক্ষনিক সময়ের জন্য।
অবশেষে ঝড় থেমে যায় আর প্রশান্তির প্রতিকরুপে কাজ করে সেই বৃক্ষগুলোই।
আমাদের ক্ষেত্রেও তাই।
ঝড় তো আসবেই আর এটাই প্রকৃতির নিয়ম।
সেই ঝড়ে ভেঙে না পরে একটু নিজের প্রাপ্তিগুলোর মহিমা নিয়ে বেঁচে থাকাটা কী অনেক বেশি কঠিন ?
ঝড় তো ক্ষনিকের, পরক্ষণে আমরাই তো স্নিগ্ধতার প্রতীক।
তবে কেন এতো দোটানা আমাদের বেঁচে থাকা নিয়ে?
আমরা কী কালো কিংবা রঙিন চশমায় আবৃত যার জন্য প্রকৃতির ধারন করা এই বেঁচে থাকার উদাহরণগুলো আমাদের চোখে পরে না ।
সব কিছুর উদ্ধে আমাদের নিজেদেরকে বাঁচিয়ে রাখতে হবে,
আর এটাই পৃথিবীর বুকে সবচেয়ে বড় অর্জন।
শুধু বেঁচে থাকলেও জীবনে অনেক কিছুই হয়।
হেরে যাওয়ার জন্য আমাদের জন্ম নয়,
আমাদের জন্ম জয়ী হওয়ার জন্য,
,সুতরাং আমার বাঁচবো।
জীবনকে বুঝিয়ে দেয়া উচিত আমরা কতটা তেজস্বী আমরা কতটা বলবান।
সুতরাং সম্মান নিয়ে বেঁচে থাকার চেষ্টা করুন জীবনের শেষ সূর্যাস্ত পর্যন্ত।
জীবনের কাছে হেরে গিয়ে মৃত্যুবরন করা কাপুরুষতার বহিঃপ্রকাশ।
কিন্তু আমরা তো তা নই, সর্বপরি আমরা মানুষ,
আমরাই সেরা।

আমাদের বেঁচে থাকাটাও সেই সেরকম কিছু সেরার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করাই আমাদের লক্ষ্য।
ঐকান্তিকতায় পরিপূর্ণ হোক প্রতিটি মানুষের বেঁচে থাকা এই প্রত্যাশায় আমি।
_______________________আব্দুল মালেক শুভ

বিশ্ব ভ্রমান্ড অস্ত যায় না তোমার আমার ইশারায় শ্রেষ্টত্ব নিয়ে বাজী ধরো নগণ্য অস্হিত্ব নীল নয়

বিশ্ব ভ্রমান্ড অস্ত যায় না তোমার আমার ইশারায় শ্রেষ্টত্ব নিয়ে বাজী ধরো নগণ্য অস্হিত্ব নীল নয়
জ্ঞান আর বুদ্ধির অহমিকায় ভুলে গেছ অবকাশ ক্ষমতার ভোগের লিপ্সায় পাহারসম সহবাস
আমি নিজেকে দেই সস্থি তোমার জন্যে শান্তি বিশ্ব জগতে ক্ষীয় অবকাশ,
আমি নিজেকে দেই সস্থি তোমার জন্যে শান্তি বিশ্ব জগতে ক্ষীয় অবকাশ ।
প্রশ্ন নেই, উত্তর নেই! আর আমার অহকাশ স্থূবিরতায় অবকাশ
কর্মযোগ্যে বিশাল প্রতিভা কোন মৃত্তিকায় তৈরি আমি কেউ তা বোঝেনা
ব্যাপ্তি আমার ঊর্ধ্ব গগণে মেঘের সাথে শয়নে জ্ঞান আর বুদ্ধির অহমিকায় ভুলে গেছ অবকাশ
ক্ষমতার ভোগের লিপ্সায় পাহারসম সহবাস আমি নিজেকে দেই সস্থি তোমার জন্যে শান্তি বিশ্ব জগতে ক্ষীয় অবকাশ,
আমি নিজেকে দেই সস্থি তোমার জন্যে শান্তি বিশ্ব জগতে ক্ষীয় অবকাশ,
আমি নিজেকে দেই সস্থি তোমার জন্যে শান্তি বিশ্ব জগতে ক্ষীয় অবকাশ,
আমি নিজেকে দেই সস্থি তোমার জন্যে শান্তি বিশ্ব জগতে ক্ষীয় অবকাশ ।

শুক্রবার, ৩ নভেম্বর, ২০১৭

অভিমানী দুচোখ , কতদিন তোমায় দেখে না , অস্থির আবরনে পুড়ে যায় ,তবু একা । অভিমানী এ মন ।

অভিমানী দুচোখ ,কতদিন তোমায় দেখে না ,অস্থির আবরনে পুড়ে যায় ,তবু একা ।অভিমানী এ মন ,তোমার স্মৃতিতে আজো কাতর ,ব্যস্ত আমি ভুলে যাচ্ছি দেখো তোমায় ।অভিমান আমার ,কখনো অন্ধকার ঘরে একা ,অশ্রুসজল এ চোখে যে প্রেম ,তা তোমার কখনো হবে না ।


অভিমান আমার,কখনো বালিশে চাপা এ দীর্ঘ রাত ,ধুম্রজালে এ ঠোট ,এ ঠোট আর তোমার হবে না ।ভয় পেয়ও না, ফিরে তাকাবো না ,কখনো আর ডাকবো না ।অভিমান আমার ,কখনো অন্ধকার ঘরে একা ,অশ্রুসজল এ চোখে যে প্রেম ,তা তোমার কখনো হবে না ।অভিমান আমার,কখনো বালিশে চাপা এ দীর্ঘ রাত ,ধুম্রজালে এ ঠোট ,এ ঠোট আর তোমার হবে না ।বর্ষপঞ্জিকার ছেড়া পাতায়,দাগ কাটা দিন গুলোতে ,একটু খানি সময় শুধু বাঁধা ,এতোটুকুই দেবো তোমায় ,এর বেশি একটু নয় ,নিয়ম করেই এতোটুকুই তুমি আমার ।অভিমান আমার ,কখনো অন্ধকার ঘরে একা ,অশ্রুসজল এ চোখে যে প্রেম ,তা তোমার কখনো হবে না ।অভিমান আমার,কখনো বালিশে চাপা এ দীর্ঘ রাত ,ধুম্রজালে এ ঠোট ,এ ঠোট আর তোমার হবে না ।লাল শাড়িটা তুমি আমার জন্যে পড়লে না,আমার নামের পদবীটা নিলে না ।অভিমান আমার ,কখনো অন্ধকার ঘরে একা ,অশ্রুসজল এ চোখে যে প্রেম ,তা তোমার কখনো হবে না ।অভিমান আমার,কখনো বালিশে চাপা এ দীর্ঘ রাত ,ধুম্রজালে এ ঠোট ,এ ঠোট আর তোমার হবে না ।

শনিবার, ২৮ অক্টোবর, ২০১৭

যতবার তোকে দেখি তোর জন্য প্রতি স্পন্দনে প্রার্থনা করি কি করে বলবো বল


কি করে বলবো বল তুই আজো আমায় ভালোবাসিস
প্রেমে পরি নতুন করে যত বার তোকে দেখি তোর জন্য প্রতি স্পন্দনে প্রার্থনা করি কি করে বলবো বল তুই কি আমার কথা আজো ভাবিস এক বর্ষার সকালে ভিজে তুই হাটছিলি আনমনে পাশ থেকে এসে তোর জন্য ছাতা টা ধরে প্রথম একসাথে ট্রামে চড়া পাশে বসে প্রথম হাতটা ধরা কলেজের প্র সন্ধ্যে বেলা এক সাথে সিনেমায় যাওয়া হঠাত তোর দেষ ছেড়ে যাওয়া শেষ বিদায় তোর এসে না বলা তোর সাথে শেষ তোলা ছবির স্মৃতি নিয়ে বেচে থাকা আমাদের দশম বার্ষিকীতেও তোকে না ভুলতে পারা কি করে বলবো বল তুই আজো আমায় ভালোবাসিস প্রেমে পরি নতুন করে যতবার তোকে দেখি তোর জন্য প্রতি স্পন্দনে প্রার্থনা করি কি করে বলবো বল তুই কি আমার কথা আজো ভাবিস বলেছিলি যতন করে রাখবি পাপড়ি গুলো ডায়রির ভাজে, তোর সাজ ঘরে কিছু মনে করবো না আমি যদি বলিস তুই আরো কারো সাথে সুখী ত্যাগ করতে রাজি যদি ফুটে তোর মুখে একটু হাসি শুধু জানতে চায় রেখেছিস মনে কি হেরে যায়নি আমাদের ভালোবাসা দূরত্বের অধীন বুক ফেটে আসে রোজ বেদনা সীমাহীন তোকে না ভেবে একটাও দিন কাটানো বেশ কঠিন কি করে বলবো বল তুই আজো আমায় ভালোবাসিস প্রেমে পরি নতুন করে যত বার তোকে দেখি তোর জন্য প্রতি স্পন্দনে প্রার্থনা করি কি করে বলবো বল তুই কি আমার কথা আজো ভাবিস

সোমবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৭

Tell Me Who Knows You Better Than I Do

Dose he Know. You Still Spoke Me Through 
Your Heart Everyday In shine and Grey.
-
Just The Way I Still Do Solitary in The Night 
Smiles Without Realizing
-

We Shall Meet Again Reminiscence. 
-
Would Sit & Smile After A Call Your Name .
-
Tell Me Who Knows You Better Than I Do.
It' Been So Long.
-
I've Not Seen You.
I Long For Waiting You.
-
Then Back Home We Shall Discuss Together.
-
All The Qualms Of Your Heart.
-
Tell Me Who Knows You Better Than I Do.
-
If Ever Cross Your Mind Do Aks How Am I Doing.
-
The First Sight Of You Used To Set My Day.
-
In Everything I Do I Dream Of You.
-
I Smile After I Call Your Name.
-
Tell Me Who Knows You Better Than I Do.
LikeShow more reactions

বৃহস্পতিবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

Abdul Malek Shuvo | Twitter

Hey! Thanks for following Twitter Account ( Abdul Malek Shuvo )
@Abdulmalekshuvo :) 


For more epic videos, photos and stories feel free to visit :-  #Youtube  Channal Subscribe Like Comment  Shear With Us

https://www.youtube.com/c/abdulmalekshuvo

#Facebook Id Add/ Follow With Us

https://www.facebook.com/abdulmalekshuvo

#Bolgger Follow With Us

https://www.abdulmalekshuvo.blogspot.com

#Twitter Follow With Us

https://twitter.com/abdulmalekshuvo

#Bolgspot.com Follow With Us

https://www.abdulmalekshuvo.blogspot.com

#Instagram Follow With Us

https://www.instagram.com/abdulmalekshuvo

Have fun!

P.S. Don't forget to turn on the notifications :)

বুধবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

Linkedin.com/in/abdul-malek-shuvo

ABDUL MALEK SHUVO SOCIAL NOTWORK | MY SITE

Abdul Malek Shuvo | Twitter

সোমবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

নোবেল পুরস্কারপ্রাপ্তদের তালিকা

নোবেল পুরস্কারপ্রাপ্তদের তালিকা বলতে ১৯০১ সালে থেকে অদ্যাবধি বিভিন্ন বছর বিষয় অনুসারে নোবেল পুরস্কার বিজয়ীদের নামের তালিকাকে বুঝানো হয়েছে।

তালিকা[সম্পাদনা]

বছরপদার্থবিজ্ঞানরসায়নচিকিৎসা শাস্ত্রসাহিত্যশান্তিঅর্থনীতি
১৯০১ভিলহেল্ম কনরাড র‌ন্টগেনইয়াকোবুস হেনরিকুস ফান্ট হফএমিল ভন বেহরিংসুলি প্রুধোমহেনরি ডুনান্ট;
ফ্রেদেরিক পাসি
১৯০২হেন্ড্রিক আন্টোন লোরেন্‌ৎস;
পিটার জেমান
হের্মান এমিল ফিশাররোনাল্ড রসথিওডর মম্‌সেনএলি দ্যুকম্যুন;
চার্লস আলবার্ট গোবাট
১৯০৩আঁতোয়ান অঁরি বেকেরেল;
পিয়ের কুরি
মারি ক্যুরি
সভান্টে আরেনিউসনীলস্‌ রাইবার্গ ফিনসেনইয়র্নস্টার্ন ইয়র্নসেনস্যার র‌্যান্ডাল ক্রেমার
১৯০৪জন উইলিয়াম স্ট্রাট, ৩য় ব্যারন রেলিউইলিয়াম রামজেইভান পাভলভফ্রেদেরিক মিস্ত্রাল;
জোসে এচেগারে
ইনস্টিটিউট অফ ইন্টারন্যাশনাল ল
১৯০৫ফিলিপ এডুয়ার্ড আন্টন ফন লেনার্ডইয়োহান ফ্রিড্‌রিশ ভিলহেল্ম আডলফ ফন বাইয়াররবার্ট কখহেন্‌রিক শিন্‌কিয়েউইচবের্থা ফন সুটনার
১৯০৬জোসেফ জন টমসনঅঁরি মোয়াসঁক্যামিলো গলজি;
সান্টিয়াগো র‌্যামোন আই ক্যাযাল
জিওসুয়ে কার্দুচ্চিথিওডোর রুজ্‌ভেল্ট
১৯০৭আলবার্ট আব্রাহাম মিকেলসনএডুয়ার্ড বুখনারঅ্যালফনজি ল্যাভেরানরুডইয়ার্ড কিপলিংএর্নেস্তো তিওদোরো মোনেতা;
লুই রেনো
১৯০৮গাব্রিয়েল লিপমানআর্নেস্ট রাদারফোর্ডএলি মেটকিনকফ ;
পল এনরিচ
রুডল্‌ফ ক্রিস্টোফ ইউকেনক্লাস পন্টাস আর্নল্ডসন;
ফ্রেডরিক বাইয়ের
১৯০৯গুলিয়েলমো মার্কোনি;
কার্ল ফের্ডিনান্ড ব্রাউন
ভিলহেল্ম অস্টভাল্ডথিওডোর কোচারসেলমা লাগেরলফআউগুস্ত্‌ মারি ফ্রঁসোয়া বিয়ের্‌নার্ট;
পল-অঁরি-বেঞ্জামিন দেস্‌তুর্নেল দ্য কঁস্‌তোঁ
১৯১০ইয়োহানেস ডিডেরিক ফান ডার ভাল্‌সঅটো ভালাখঅ্যালব্রেচ্‌ট কোসেলপল হাইসেপার্মানেন্ট ইন্টারন্যাশনাল পীস্‌ ব্যুরো
১৯১১ভিলহেল্ম ভিনমারি ক্যুরিঅ্যালভার গুলস্ট্রান্ডমরিস মেটারলিংক‌টোবিয়াস মাইকেল ক্যারেল অ্যাসার;
আলফ্রেড হের্ম্যান ফ্রিড্‌
১৯১২নিল্‌স গুস্তাফ দালেনভিক্তর গ্রিনিয়ার;
পোল সাবাতিয়ে
অ্যালেক্সিস ক্যারেলগেরহার্ট হাউপ্টমানএলিহু রুট
১৯১৩হেইকে কামারলিং ওনেসআলফ্রেড ভার্নারচার্লস রিচ্‌টরবীন্দ্রনাথ ঠাকুরঅঁরি লা ফন্তেন্‌
১৯১৪মাক্স ফন লাউয়েথিওডোর উইলিয়াম রিচার্ডসরবার্ট বার্নেইপ্রদান করা হয় নিপ্রদান করা হয় নি
১৯১৫উইলিয়াম হেনরি ব্র্যাগ;
উইলিয়াম লরেন্স ব্র্যাগ
রিশার্ড মার্টিন ভিলষ্টেটারপ্রদান করা হয় নিরোম্যাঁ রোলাঁপ্রদান করা হয় নি
১৯১৬প্রদান করা হয় নিপ্রদান করা হয় নিপ্রদান করা হয় নিফের্নার ফন হাইডেন্‌শ্‌টামপ্রদান করা হয় নি
১৯১৭চার্লস গ্লোভার বার্কলাপ্রদান করা হয় নিপ্রদান করা হয় নিকার্ল এডল্‌ফ গিয়েলেরুপ;
হেনরিক পন্টোপ্পিদান
ইন্টারন্যাশনাল কমিটি অফ দ্য রেড ক্রস
১৯১৮মাক্স প্লাংকফ্রিৎস হাবারপ্রদান করা হয় নিপ্রদান করা হয় নিপ্রদান করা হয় নি
১৯১৯ইয়োহানেস ষ্টার্কপ্রদান করা হয় নিজুল্‌স বর্ডেটকার্ল ‌স্পিটেলারউড্রো উইল্‌সন
১৯২০শার্ল এদুয়ার গিয়্যোমভাল্টার হের্মান নের্ন্‌স্টঅগাস্ট স্টিনবার্গ কর্গনাট হ্যামসূনলেওন বুর্জোয়া
১৯২১আলবার্ট আইনস্টাইনফ্রেডেরিক সডিপ্রদান করা হয় নিআনাতোল ফ্রঁসহিয়ালমার ব্রান্টিং;
ক্রিস্টিয়ান ল্যাং
১৯২২নিল্‌স হেনরিক দাভিদ বোরফ্রানসিস উইলিয়াম অ্যাস্টনআর্চিবাল্ড ভি. হিল;
অট্টো মেয়ারহফ
হাসিন্তো বেনাভেন্তেফ্রিট্‌ইয়োফ নান্‌সেন
১৯২৩রবার্ট অ্যান্ড্রুজ মিলিকানফ্রিৎস প্রেগ্‌লফ্রেডরিখ গ্রান্ট ব্যান্টিং;
জন জেমস রিচার্ড ম্যাক্লিয়ড
উইলিয়াম বাটলার ইয়েটসপ্রদান করা হয় নি
১৯২৪কার্ল মানে গেয়র্গ জিগবানপ্রদান করা হয় নি'উইলহেম ইনথোভেনলাডিস্লো রেইমন্টপ্রদান করা হয় নি
১৯২৫জেমস ফ্রাংক;
গুস্টাফ লুটভিগ হের্ৎস
রিচার্ড এডলফ সিগমন্ডিপ্রদান করা হয় নিজর্জ বার্নার্ড শস্যার অস্টিন চেম্বারলেইন;
চার্লস গেইট্‌‌স ডজ্‌
১৯২৬জঁ-বাতিস্ত প্যরাঁথিওডর স্ভেদবার্গজোহান্‌স ফিবিগারগ্রাজিয়া দেলেদ্দাআরিস্তিদ্‌ ব্রিয়োঁ;
গুস্তাভ স্ট্রেসেমান
১৯২৭আর্থার হোলি কম্পটন;
চার্লস টমসন রেস উইলসন
হেইনরিখ অটো ভাইল্যান্ডজুলিয়াস ওয়াগনার-জাউরেজঅঁরি বর্গসাঁফার্দিনান্দ বুইসোঁ;
লুড্‌ভিগ কুইডে
১৯২৮ওয়েন উইলিয়ানস রিচার্ডসনএডলফ অটো রিনহোল্ড উইনদসচার্লস নিকোলসিগ্রিড উন্ড্‌সেটপ্রদান করা হয় নি
১৯২৯লুই ভিক্তর পিয়ের রেমোঁ দ্য ব্রোয়িআর্থার হার্ডেন;
হ্যান্স কার্ল অগাস্ট সাইমন ভন ইউলার-চেলপিন
ক্রিস্টিয়ান ইজকামান;
স্যার ফ্রেডরিখ হপকিন্স
টমাস মানফ্রাঙ্ক বি. কেলোগ
১৯৩০চন্দ্রশেখর ভেংকট রমনহ্যান্স ফিশারকার্ল ল্যান্ডস্টেইনারসিনক্লেয়ার লুইসনেথান সোডারব্লম
১৯৩১প্রদান করা হয় নিকার্ল বশ;
ফ্রেডরিখ বার্গিয়াস
অট্টো ওয়ারবুর্গএরিক এক্সেল কার্ল্‌ফেল্টজেইন অ্যাডাম্‌স;
নিকোলাস মারে বাটলার
১৯৩২ভের্নার কার্ল হাইজেনবের্গআর্ভিং ল্যাংমিউয়রএডগার অ্যাডরেইন;
স্যার চার্লস শেরিংটন
জন গল্‌স্‌ওয়ার্দিপ্রদান করা হয় নি
১৯৩৩এরভিন শ্র্যোডিঙার;
পল আর্দ্রিয়াঁ মোরিস দিরাক
প্রদান করা হয়নিথমাস হান্ট মর্গানআইভান আলেক্সেইভিচ বুনিনস্যার নরম্যান অ্যাঞ্জেল
১৯৩৪প্রদান করা হয় নিহ্যারল্ড ক্লেটন ইউরিজর্জ আর. মিনট;
উইলিয়াম পি মারফি;
জর্জ এইচ. উইপেল
লুইজি পিরানদেল্লোআর্থার হেন্ডারসন
১৯৩৫জেমস চ্যাডউইকফ্রেদেরিক জোলিও-কুরি;
আইরিন জোলিও-কুরি
হ্যান্স স্পিমানপ্রদান করা হয় নিকার্ল ফন অসিয়েত্‌স্কি
১৯৩৬ভিক্টর ফ্রান্ৎস হেস;
কার্ল ডেভিড অ্যান্ডারসন
পিটার ডিবাইস্যার হেনরি ডেল;
অট্টো লয়েই
ইউজিন ও'নিলকার্লোস সাভেদ্রা লামাস
১৯৩৭ক্লিনটন জোসেফ ডেভিসন;
জর্জ প্যাগেট থমসন
ওয়াল্টার নর্মান হেওয়র্থ|";
|পল কারার
আলবার্ট সেজেন্ট জর্জিরজার মার্টিন দ্য গর্ড‌রবার্ট সেসিল
১৯৩৮এনরিকো ফের্মিরিশার্ড কুনকর্ণেলি হেইম্যান্সপার্ল এস. বাকনান্‌সেন ইন্টারন্যাশনাল অফিস ফর রেফিউজিস
১৯৩৯আর্নেস্ট অরল্যান্ডো লরেন্সআডল্‌ফ ফ্রিড্‌রিশ ইয়োহান বুটেনান্ড্‌ট;
লাভোস্লাভ রুৎজিচ্‌কা
গারহার্ড ডোমাগফ্রান্স ইমিল সিলান্‌পাপ্রদান করা হয় নি
১৯৪০প্রদান করা হয় নিপ্রদান করা হয় নিপ্রদান করা হয় নিপ্রদান করা হয় নিপ্রদান করা হয় নি
১৯৪১প্রদান করা হয় নিপ্রদান করা হয় নিপ্রদান করা হয় নিপ্রদান করা হয় নিপ্রদান করা হয় নি
১৯৪২প্রদান করা হয় নিপ্রদান করা হয় নিপ্রদান করা হয় নিপ্রদান করা হয় নিপ্রদান করা হয় নি
১৯৪৩অটো ষ্টের্নজর্জ শার্ল দ্য হেভেসিহেনরিক ড্যাম;
এডয়ার্ড এ. ডয়সি
প্রদান করা হয় নিপ্রদান করা হয় নি
১৯৪৪ইসিদোর ইজাক রাবিঅটো হানযোসেপ আরল্যাঙ্গার;
হারবার্ট এস. গ্যাসার
ইয়োহানেস ইয়েনসেনইন্টারন্যাশনাল কমিটি অফ দ্য রেড ক্রস
১৯৪৫ভোল্‌ফগাং পাউলিআর্টুরি ইলমারি ভিরটানেনস্যার অ্যালেকজান্ডার ফ্লেমিং;
আর্ণেস্ট বি. চেইন;
স্যার হাওয়ার্ড ফ্লোরে
গ্যাব্রিয়েলা মিস্ত্রালকর্ডেল হাল
১৯৪৬পার্সি উইলিয়ামস ব্রিজম্যানজেমস ব্যাচেলার সামনার;
জন হাওয়ার্ড নরথর্প;
ওয়েন্ডেল মেরেডিথ স্ট্যানলি
হার্মান জে মুলারহেরমান হেসএমিলি গ্রিন বল্‌চ্‌‌;
জন মট্‌
১৯৪৭এডওয়ার্ড ভিক্টর অ্যাপলটনরবার্ট রবিনসনকার্ল করি;
গার্টি করি;
বার্নার্ডো হোস্যেই
অঁদ্রে জিদ্অ্যমেরিকান ফ্রেন্ডস সার্ভিস কমিটি;
ফ্রেন্ডস সার্ভিস কাউন্সিল
১৯৪৮প্যাট্রিক মেইনার্ড স্টুয়ার্ট ব্ল্যাকেটআর্নে ভিলহেল্ম কাউরিন টিসেলিয়ুসপল হার্মান মুলারটি এস এলিয়টপ্রদান করা হয় নি
১৯৪৯হিদেকি ইউকাওয়াউইলিয়াম ফ্রান্সিস জিওকওয়াল্টার হেস;
এগাস মনিজ
উইলিয়াম ফক্‌নারজন বয়েড অর্‌
১৯৫০সেসিল ফ্র্যাংক পাওয়েলঅটো পল হের্মান ডিল্‌স;
কুর্ট আল্ডার
ফিলিপ এস হেঞ্চ;
এডয়ার্ড কেলফিন কেন্ডাল;
থাডিয়াস রিচস্টেইন
বার্ট্রান্ড রাসেলরালফ বাঞ্চি
১৯৫১জন ডগলাস কক্‌ক্রফ্‌ট;
আর্নেস্ট টমাস সিন্টন ওয়াল্টন
এডউইন মাটিসন ম্যাকমিলান;
গ্লেন থিওডোর সিবোর্গ
ম্যাক্স থেইলারপার ল্যাগারভিস্তলেওন জুহো
১৯৫২ফেলিক্স ব্লখ;
এডওয়ার্ড মিল্‌স পারসেল
আর্চার জন পোর্টার মার্টিন;
রিচার্ড লরেন্স মিলিংটন সিঞ্জ
সেল্‌ম্যান এ ওয়াক্সম্যানফ্রঁসোয়া মরিয়াকআলবার্ট শ্‌ফাইত্‌সার
১৯৫৩ফ্রিৎস জের্নিকেহেরমান্ন শ্তাউদিঙ্গেরহ্যান্স এডলফ ক্রেব্‌স;
ফ্রিটজ্‌ আলবার্ট লিপম্যান
উইনস্টন চার্চিলজর্জ মার্শাল
১৯৫৪মাক্স বর্ন;
ওয়াল্টার বোটে
লিনাস পাউলিংজন ফ্রাঙ্কলিন এন্ডারস;
ফ্রেড্রিখ চ্যাপম্যান রবিন্‌স;
থমাস হাকল ওয়েলার
আর্নেস্ট হেমিংওয়েজাতিসংঘ উদ্বাস্তু বিষয়ক হাই কমিশন
১৯৫৫উইলিস ইউজিন ল্যাম্ব;
পলিকার্প কুশ
ভিঞ্চেন্ত দু ভিগ্নেয়াউদএক্সেল হুগু থিওরেলহ্যাল্‌ডর ল্যাক্সনেসপ্রদান করা হয় নি
১৯৫৬উইলিয়াম ব্র্যাডফোর্ড শক্‌লি;
জন বারডিন;
ওয়াল্টার হাউজার ব্র্যাটেইন
স্যার চ্যরিল নরমান হিঙ্ঘলিউড;
নিকলাই নিকলাএভিছ সেমেনভ
অ্যান্ড্রে ফেড্রিক করনান্ড;
ওয়ারনার ফর্সম্যান;
ডিকিনসন ডাব্লিউ রিচার্ড
হুয়ান রামোন হিমেনেসপ্রদান করা হয় নি
১৯৫৭চেন নিং ইয়াং (楊振寧);
সুং দাও লি (李政道)
স্যার আলেক্সান্ডার টড্ডড্যানিয়েল বোভেটআলবেয়ার কামুলেস্টার পেয়ারসন
১৯৫৮পাভেল আলেক্সেইয়েভিচ চেরেংকভ;
ইলিয়া মিখাইলোভিচ ফ্রাংক;
ইগর ইয়েভ্‌গেনিয়েভিচ তাম
ফ্রেডরিক স্যাঙ্গারজর্জ ওয়েলস বিডেল;
এডয়ার্ড লাউরি টাটম;
জোসুয়া লেডারবার্গ
বরিস পাস্তের্নাক [C]জর্জ পির্‌
১৯৫৯এমিলিও জিনো সেগরে;
ওয়েন চেম্বারলেইন
জারোস্লাভ হেরোভস্কিআর্থার কর্ণবার্গ;
সেভেরো ওচোয়া
সাল্‌ভাতোর কোয়াসিমোদোফিলিপ নোয়েল-বেকার
১৯৬০ডোনাল্ড আর্থার গ্লেজারউইলার্ড ফ্রাঙ্ক লিব্বীস্যার ফ্রাঙ্ক ম্যাকফারলেন বার্ণেট;
পিটার মিডাওয়ার
সাঁ-জঁ পের্সআলবার্ট লুথুলি
১৯৬১রবার্ট হফষ্টাটার;
রুডল্‌ফ লুডভিগ ম্যোসবাউয়ার
মেলভিন কেলভিনজর্জ ভন বেকেসিইভো আন্দ্রিচড্যাগ হ্যামারশোল্ড
১৯৬২ল্যেভ দাভিদোভিচ লান্দাউম্যাক্স ফার্দিনান্দ পেরুতয;
জন কেন্ড্রেও
ফ্রান্সিস হ্যারি কম্পটন ক্রিক;
জেমস ডেউয়ি ওয়াটসন;
ম্যাউরাইস উইলকিন্স
জন স্টেইনবেকলাইনাস পলিং
১৯৬৩ইউজিন পল উইগনার;
মারিয়া গ্যোপের্ট-মায়ার;
ইয়োহানেস হ্যান্স ডানিয়েল ইয়েনসেন
কার্ল জিগলার;
গিউলিও নাটা
স্যার জন ইক্‌লেস;
অ্যালান এল হডকিং;
অ্যান্ড্রিউ ফিল্ডিং হ্যাক্সলি
গিয়র্গোস সেফেরিসইন্টারন্যাশনাল কমিটি অফ দ্য রেড ক্রস;
লীগ অফ রেড ক্রস সোসাইটিজ
১৯৬৪চার্লস হার্ড টাউন্‌স;
নিকোলাই গেন্নাদিয়েভিচ বাসভ;
আলেক্সান্দ্‌র প্রখরভ
ডরোথি মেরি হজকিনকনরাড বলচ;
ফিউডোর লিনেন
জঁ-পল সার্ত্র্‌[D]মার্টিন লুথার কিং
১৯৬৫সিন-ইতিরো তোমোনাগা;
জুলিয়ান শুইঙার;
রিচার্ড ফিলিপ্‌স ফাইনম্যান
রবার্ট বার্নস উডওয়ার্ডফ্রানকোইস জ্যাকব;
অ্যান্ড্রে লৌফ;
জ্যাকুইস মোনড
মিখাইল শলোখভজাতিসংঘ শিশু বিষয়ক তহবিল (ইউনিসেফ)
১৯৬৬আলফ্রেড কাস্টলাররবার্ট সেন্ডারসন মুল্লিকেনচার্লস বি হুগিন্স;
পেটন রৌস
শ্‌মুয়েল ইয়োসেফ আগ্‌নোন;
নেলি সাক্স
প্রদান করা হয় নি
১৯৬৭হান্স আলব্রেশ্‌ট বেটেমানফ্রেড এইগেন;
রোনাল্ড জর্জ রেফর্ড নোরিশ;
জর্জ পোর্টার
র‌্যাগনার গ্রানিট;
হ্যাল্ডান কে হার্টলাইন;
জর্জ ওয়াল্ড
মিগেল আন্‌হেল আস্তুরিয়াসপ্রদান করা হয় নি
১৯৬৮লুইস ওয়াল্টার আলভারেজলার্স অনসেজাররবার্ট ডাব্লিউ হলি;
হর গোবিন্দ খোরানা;
মার্শাল ডাব্লিউ নিরেনবার্গ
ইয়াসুনারি কাওয়াবাতারেনে কাসাঁ
১৯৬৯মারি গেল-মানডেরেক হ্যারল্ড রিচার্ড বার্টন;
ওড্ড হাসসেল
ম্যাক্স ডেলবুর্ক;
অ্যালফ্রেড হার্সে;
স্যালভাদর লরিয়া
স্যামুয়েল বেকেটআন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা (আই.এল.ওরাগ্‌নার ফ্রিশ;
ইয়ান টিনবার্গেন
১৯৭০হানেস উলফ গোস্তা আল্‌ফভেন;
লুই ইউজিন ফেলিক্স নিল
লুইস ফেডেরিক লেলইরজুলিয়াস অ্যাক্সেলরড;
উলফ ভন ইউলার;
স্যার বার্ণার্ড কাটজ্‌
আলেক্সান্দ্‌‌র সল‌ঝেনিত্‌‌সিননরম্যান বোরলাউগপল স্যামুয়েলসন
১৯৭১ডেনেস গাবরগেরহার্ড হার্জবার্গআর্ল ডাব্লিউ সুদারল্যান্ড জুনিয়রপাবলো নেরুদাউইলি ব্র‌্যান্টসাইমন কুজ্‌নেত্‌স
১৯৭২জন বারডিন;
লিয়ন নেইল কুপার;
জন রবার্ট শ্রিফার
ক্রিস্টিয়ান ব. আনফিন্সেন;
স্টানফোর্ড মুর;
উইলিয়াম এইচ. স্টেইন
জেরাল্ড এম. এডেলম্যান;
রডনি আর. পোর্টার
হাইন্‌রিখ বোলপ্রদান করা হয় নিজন হিক্‌স;
কেনেথ এরো
১৯৭৩লিও এসাকি;
ইভার ইয়্যাভার;
ব্রায়ান ডেভিড জোসেফসন
আর্নস্ট অটো ফিশার;
জিওফ্রে উইল্কিন্সন
কনরাড লোরেন্‌ৎস;
নিকোলাস টিনবারজেন;
কার্ল ভন ফ্রিচ্‌
প্যাট্রিক হোয়াইট‌হেনরি কিসিঞ্জার;
লি ডাক থো
ওয়াসিলি লেওন্তিয়েফ
১৯৭৪মার্টিন রাইল;
অ্যান্টনি হিউইশ
পল জন ফ্লোরিঅ্যালবার্ট কল্ড;
ক্রিস্টিয়ান ডি দুভ;
জর্জ এ প্যালাডে
আইভিন্ড জনসন ;
হ্যারি মার্টিনসন
শন্‌ ম্যাকব্রাইড;
এইসাকু সাতো
গুনার মিরদাল
ফ্রিড্‌রিখ হায়েক
১৯৭৫অউ নিল্‌স বোর;
বেন রয় মোটেলসন;
লিও জেমস রেইনওয়াটার
জন ওয়ারকাপ কর্নফোর্থ
ভ্লাডিমির প্রেলগ
ডেভিড ব্যাল্টিমোর;
রেনাটো ডুলবেকো;
হাওয়ার্ড এম টেমিন
ইউজেনিও মন্তালেআন্দ্রে সাখারভলিওনিদ কান্তোরোভিচ;
টিয়ালিং কুপ্‌মান্স
১৯৭৬বার্টন রিখটার;
সামুয়েল ছাও ছুং থিং
উইলিয়াম লিপ্সচম্ববারুচ এস ব্লুমবার্গ;
ডি কার্ল্টন গ্যাজডুসেক
সল্‌ বেলোমাইরিয়াড কোরিগান;
বেটি উইলিয়ামস
মিল্টন ফ্রিড্‌ম্যান
১৯৭৭ফিলিপ ওয়ারেন এন্ডারসন;
নেভিল ফ্রান্সিস মট
জন হ্যাসব্রাউক ভ্যান ভ্লেক
ইয়া প্রিগগিনেরজার গুইলেমিন;
অ্যান্ড্রিউ ভি স্ক্যালি;
রোজালিন ইয়ালো
ভিসেন্তে আলেইক্সান্দ্রেঅ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালবের্টিল ওলিন;
জেমস মীড
১৯৭৮পিয়োতর লিওনিদোভিচ কাপিৎসা;
আরনো এলান পেনজিয়াস;
রবার্ট উড্রো উইলসন
পিটার ডি। মিতছেল্লওয়ার্নার আর্বার;
ড্যানিয়েল নাথন্স;
হ্যামিল্টন ও স্মিথ
আইজাক বাশেভিস সিঙ্গারমেনাখেম বেগিন;
আনোয়ার সাদাত
হার্বার্ট আলেকজান্ডার সিমন
১৯৭৯শেল্ডন লি গ্ল্যাশো;
আবদুস সালাম;
স্টিভেন ওয়াইনবার্গ
হারবার্ট সি. ব্রাউন;
জর্জ উইট্টিং
অ্যালান এম করম্যাক;
গডফ্রে এন হাউন্সফিল্ড
ওডিসিয়াস এলাইটিসমাদার তেরেসাথিওডোর শুল্ট্‌স;
আর্থার লিউইস
১৯৮০জেমস ক্রোনিন;
ভ্যাল লজ্‌স্‌ডন ফিচ
পল বার্গ;
ওয়াল্টার গিলবার্ট;
ফ্রেডরিক স্যাঙ্গার
বারুজ বেনাসেরাফ;
জেন ডসে;
জর্জ ডি স্লেল
চেশোয়াফ মিওসআদোলফো পেরেজ এস্কিভেললরেন্স ক্লাইন
১৯৮১নিকোলাস ব্লোমবের্গেন;
আর্থার লিওনার্ড শলো;
কাই মানে বোরিয়ে জিগবান
কেনিচি ফুকুই;
রোয়াল্ড হোফমান
ডেভিড এইচ হুবেল;
টরস্টেন এন উইসেল;
রজার স্পেরি
এলিয়াস কানেত্তিজাতিসংঘ উদ্বাস্তু বিষয়ক হাই কমিশনজেমস টোবিন
১৯৮২কেনেথ জি উইলসনঅ্যারন ক্লুগসুন কে বার্গস্ট্রোম;
বেন্‌গট আই স্যামুয়্যেলসন;
জন আর ভেন
গাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেসআলভা মিরদল;
অ্যালফোনসো গার্সিয়া রোব্‌লস
জর্জ স্টিগ্‌লার
১৯৮৩সুব্রহ্মণ্যন চন্দ্রশেখর;
উইলিয়াম আলফ্রেড ফাউলার
হেনরি টাউববারবারা ম্যাকলিন্টকউইলিয়াম গোল্ডিংলেচ ওয়ালেসাজেরার্ড দেব্রু
১৯৮৪কার্লো রুবিয়া;
সিমন ফান ডার মিয়ার
রবার্ট ব্রুস মেরিফিল্ডনীলস্‌ কে জেরনে;
জর্জেস জে এফ কোহলার;
সিজার মিলস্টেইন
ইয়ারোস্লাভ্‌ সাইফার্ত্‌ডেসমন্ড টুটুরিচার্ড স্টোন
১৯৮৫ক্লাউস ফন ক্লিৎসিংহার্বার্ট হপ্টম্যান;
জেরোম কার্ল
ক্লড সিমন;
যোসেফ এল গোল্ডস্টেইন
ক্লদ্‌ সিমোঁইন্টারন্যাশনাল ফিজিসিয়ানস ফর দি প্রিভেনশন অফ নিউক্লিয়ার ওয়ারফ্রাংকো মোদিগ্‌লিয়ানি
১৯৮৬আর্নস্ট রুস্কা;
গের্ড বিনিগ;
হাইনরিশ রোরার
ডাডলি হের্শবাখ;
ইউয়ান ৎসে লি;
জন চার্লস পোলানি
স্টানলী কোহেন;
রিটা লেভি-মোন্টালচিনি
ওলে সোয়িংকাএলি ওয়াইসেলজেমস বিউকানান জুনিয়র
১৯৮৭ইয়োহানেস গেয়র্গ বেন্ডনর্‌ৎস;
কার্ল আলেকজান্ডার মুলার
ডোনাল্ড জেমস ক্র্যাম;
জঁ-মারি লেন;
চার্লস পেডারসেন
সুসুমু টোনেগাওয়াজোসেফ ব্রডস্কিঅস্কার অ্যারিয়াস সাঞ্চেজরবার্ট সলো
১৯৮৮লিয়ন ম্যাক্স লেডারম্যান;
মেলভিন শোয়ার্জ;
জ্যাক স্টাইনবার্গার
ইয়োহান ডাইজেনহোফার;
রোবার্ট হুবার;
হার্টমুট মিশেল
স্যার জেমস ডাব্লিউ ব্লাক;
গার্ট্রুড বি ইলন;
জর্জ এইচ হিচিং
নাগিব মাহফুজজাতিসংঘ শান্তি রক্ষী বাহিনীমরিস আলে
১৯৮৯নরম্যান ফস্টার র‌্যামজে;
হ্যান্স গেয়র্গ ডেমেল্ট;
ভোল্‌ফগাং পাউল
সিডনি অল্টম্যান;
টমাস চেক
মাইকেল জে বিশপ;
হ্যারল্ড ই ভারমাস
কামিলো হোসে সেলাদালাই লামাট্রিগ্‌ভে হাভেল্‌মো
১৯৯০জেরোম আইজ্যাক ফ্রিডম্যান;
হেনরি ওয়ে কেন্ডাল;
রিচার্ড এডওয়ার্ড টেইলর
এলিয়াস জেমস কোরিযোসেফ ই মুরে;
ই ডোনাল থমাস
অক্টাভিও পাজমিখাইল গর্বাচেভহ্যারি মার্কোউইট্‌স;
মার্টন মিলার;
উইলিয়াম শার্প
১৯৯১পিয়ের জিল দ্য জেনরিশার্ড এর্ন্‌স্টইরউইন নেহের;
বার্ট সাক্‌ম্যান
নাডিন গর্ডিমারঅং সান সু কিরোনাল্ড কোজ
১৯৯২জর্জ চারপাকরুডলফ মার্কাসএডমন্ড এইচ ফিসার;
এডুইন জি ক্রেবস
ডেরেক ওয়ালকট‌রিগোবার্টা মেঞ্চুগ্যারি বেকার
১৯৯৩রাসেল অ্যালান হাল্‌স;
জোসেফ হুটন টেইলর জুনিয়র
ক্যারি মুলিস;
মাইকেল স্মিথ
রিচার্ড জে রবার্টস;
ফিলিপ এ শার্প
টনি মরিসনফ্রেডেরিক উইলেম দ্য ক্লার্ক;
নেলসন মেন্ডেলা
রবার্ট ফোগেল
ডগলাস নর্থ
১৯৯৪বার্ট্রাম নেভিল ব্লকহাউস;
ক্লিফোর্ড গ্লেনউড শাল
জর্জ ওলাঅ্যালফ্রেড জি গিলম্যান;
মার্টিন রডবেল
কেন্‌জাবুরো ওহয়েইয়াসির আরাফাত;
শিমন পেরেজ;
আইজ্যাক রবিন
জন হার্সান্‌ইয়ি
জন ফর্ব্‌স ন্যাশ
রাইনহার্ড সেল্টেন
১৯৯৫মার্টিন লিউইস পার্ল;
ফ্রেডেরিক রাইনেস
পল ক্রুৎসেন;
মারিও মোলিনা;
শেরউড রোল্যান্ড
এডওয়ার্ড বি লুইস;
ক্রিস্টিয়ান নুসলেইন ভলহার্ড;
এরিক এফ উইস্কাস
শেমাস্‌ হীনিপাগওয়াশ কনফারেন্সেস ফর সাইন্স অ্যান্ড ওয়ার্ল্ড অ্যাফেয়ার্স;
জোসেফ রটব্লাট
রবার্ট লুকাস
১৯৯৬ডেভিড মরিস লি;
ডগলাস ডিন ওশেরফ;
রবার্ট কোলম্যান রিচার্ডসন
রবার্ট কার্ল;
হ্যারল্ড ওয়াল্টার ক্রোটো;
রিচার্ড স্মলি
পিটার সি ডর্থি;
রলফ এম জিনকারনাগেল
ভিশ্লাভা শিম্বোর্স্‌কাকার্লোস ফিলিপ জিমেনেস বেলো;
জোসে রামোস হোর্টা
জেমস মের্লিস
উইলিয়াম ভিক্‌রি
১৯৯৭স্টিভেন চু;
ক্লোদ কোয়েন-তানুজি;
উইলিয়াম ড্যানিয়েল ফিলিপ্‌স
পল বয়ার;
জন ওয়াকার;
ইয়েন্স ক্রিস্টিয়ান স্কৌ
স্টানলি বি প্রুসিনারদারিও ফোইন্টারন্যাশনাল ক্যাম্পেইন টু ব্যান ল্যান্ডমাইনস;
জোডি উইলিয়ামস
রবার্ট মার্টন;
মাইরন শোল্‌স
১৯৯৮রবার্ট বি. লাফলিন;
হর্স্ট লুডভিগ স্ট্যোরমার;
ড্যানিয়েল চি ৎসুই
ওয়াল্টার কোন;
জন পোপল
রবার্ট এফ ফার্চগট;
লুইস জে ইগনারো;
ফরিদ মুরাদ
হোসে সারামাগোজন হিউম;
ডেভিড ট্রিম্বল
অমর্ত্য সেন
১৯৯৯গেরার্ডুস হুফ্‌ট;
মার্টিনুস ভেল্টমান
আহমেদ হাসানগান্টার ববেলগুন্টার গ্রাসডক্টরস উইদাউট বর্ডারস বা মেডিসিন্‌স সান ফ্রন্টিয়ার্‌সরবার্ট মান্ডেল
২০০০ঝরেস ইভানোভিচ আলফিরোভ;
হার্বার্ট ক্রোয়েমার;
জ্যাক সেন্ট ক্লেয়ার কিলবি
অ্যালান হিগার;
অ্যালান ম্যাকডিয়ারমিড;
হিদেকি শিরাকাওয়া
আরভিদ কার্লসন;
পল গ্রিনগ্রাদ;
এরিক আর কান্ডেল
গাও শিংশিয়ানকিম দায়ে জংজেমস হেক্‌ম্যান;
ড্যানিয়েল ম্যাক্‌ফ্যাডেন
২০০১এরিক এলিন কর্নেল;
ওয়াফগাঙ কেটার্ল;
কার্ল এডুইন ওয়াইম্যান
উইলিয়াম নোল্‌স;
রিওজি নোয়োরি;
ব্যারি শার্পলেস
লেল্যান্ড এইচ হার্টওয়েল;
টিম হান্ট;
স্যার পল নার্স
বিদ্যাধর সূর্যপ্রসাদ নাইপলজাতিসংঘ;
কফি আনান
জর্জ একারলফ;
মাইকেল স্পেন্স;
জোসেফ স্টিগ্‌লিট্‌স
২০০২রেইমন্ড ডেভিস জুনিয়র;
মাসাতোশি কোশিবা;
রিকার্ডো গিয়াকনি
কুর্ট ভ্যুট্রিশ;
জন ফেন;
কোইচি তানাকা
সিডনি ব্রেনার;
এইচ রবার্ট হরউইজ;
জন ই সুলস্টন
ইমরে কার্তেজজিমি কার্টারড্যানিয়েল কানেমান;
ভের্নন স্মিথ
২০০৩আলেক্সেভিচ এব্রিকোসব;
ভিটালি গিনজবার্গ;
অ্যান্থনি জেমস লেগেট
পিটার অ্যাগর;
রডরিক ম্যাকিনন
পল সি লতেরবার;
স্যার পিটার ম্যান্সফিল্ড
জন ম্যাক্সওয়েল কুতসিশিরিন এবাদিরবার্ট এঙ্গেল;
ক্লাইভ গ্রেঞ্জার
২০০৪ডেভিড জে গ্রস;
এইচ ডেভিড পলিৎজার;
ফ্রান্ক উইলচেক
আরন সিয়েকানোভার;
আভ্রাম হের্শকো;
আরউইন রোজ
রিচার্ড অ্যাক্সেল;
লিন্ডা বি বাক
এলফ্রিডে ইয়েলিনেকওয়াংগারি মাথাইফিন কিড্‌ল্যান্ড;
এডওয়ার্ড প্রেস্‌কট
২০০৫রয় জে গ্লোবার;
জন এল হল;
রেইমন্ড ডেভিস জুনিয়র;
মাসাতোশি কোশিবা
রবার্ট গ্রাবস;
রিচার্ড শ্রক;
ইভ শোভাঁ
ব্যারি জে. মার্শাল;
জে রবিন ওয়ারেন
হ্যারল্ড পিন্টারইন্টারন্যাশনাল এটমিক এনার্জি এজেন্সি ;
মোহাম্মদ এল বারাদি
রবার্ট আউমান;
টমাস শেলিং
২০০৬জন সি ম্যাথার;
জর্জ এফ স্মুট
রজার কর্নবার্গঅ্যান্ড্রু জেড ফায়ার;
ক্রেগ মেলো
অরহান পামুকগ্রামীণ ব্যাংক;
মুহাম্মদ ইউনুস
এডমণ্ড এস ফেল্পস
২০০৭আলবার্ট ফার্ট;
পিটার গ্রুনবার্গ
গেরহার্ড আর্টেলমারিও আর ক্যাপেচি;
স্যার মার্টিন জে ইভানস্‌;
অলিভার স্মিথ
ডোরিস লেসিংইন্টারগভার্নমেন্টাল প্যানেল ফর ক্লাইমেট চেঞ্জ (আইপিসিসি);
আল গোর
লিওনিড হারউইচ;
এরিক মাসকিন;
রজার মায়ারসন
২০০৮মাকোতা কোবায়াশি;
তোশিহিদে মাসকাওয়া;
ইয়োইচিরো নাম্বু
ওসামু শিমোমুরা;
মার্টিন চেলফি;
রজার ওয়াই. তিসিয়েন
হ্যারল্ড জুর হাউসেন;
ফ্রাঁসোয়াজ বারে সিনৌসি‌;
লুক মন্টেগনিয়ার
জঁ-মারি গুস্তাভ ল্য ক্লেজিওমার্টি আহ্‌তিসারিপল ক্রুগ্মান
২০০৯চার্লস কে. কাও;
উইলিয়ার্ড এস. বয়েল;
জর্জ ই. স্মিথ
ভেঙ্কটরমন রামকৃষ্ণান;
থমাস এ. স্টিত্‌জ;
আডা ইয়োনাথ
এলিজাবেথ ব্লাকবার্ন;
ক্যারল গ্রেইডার‌;
জ্যাক সজটাক
হের্টা মুলারবারাক ওবামাএলিনর অস্ত্রম;
অলিভার ই. উইলিয়ামসন
২০১০আন্দ্রেঁ গেইম;
কনস্টানটিন নভোসেলভ
রিচার্ড এফ. হেক;
ই-ইচি নেগিশি;
আকিরা সুজুকি
রবার্ট জি. এডওয়ার্ডসমারিও বার্গাস ইয়োসালিও জিয়াবোপিটার ডায়মন্ড;
ডেল টি. মটেরসেন
ক্রিস্টফার এ. পিসসারিডেস
২০১১সল পার্লমাটার;
ব্রায়ন পি. শেমিডিট;
অ্যাডাম জি. রেইস
ড্যান শেচতম্যানব্রুশ বিউটলার;
জুলস্ এ. হফম্যান;
রাল্ফ এম. স্টেইনম্যান(মরণোত্তর)
টমাস ট্রান্সট্রোমারএলেন জনসন সারলিফ;
লেহমাহ বয়ই;
তাওয়াকেল কারমান
থমাস সারজেন্ট;
ক্রিস্টফার এ. সিমস
২০১২সার্জ হ্যারোশ ;
ডেভিড জে ওয়াইনল্যান্ড
রবার্ট লেফকোইতজ;
ব্রায়ান কোবিল্কা
জন গার্ডন;
শিনইয়া ইয়ামানাকা
মো ইয়ানইউরোপীয় ইউনিয়নআল্ভিন ই. রথ;
ল্লয়ড শাপ্লেয়
২০১৩পিটার হিগস ;
ফ্রাঙ্কোইস অ্যাংলার্ট
মার্টিন কারপ্লাস;
মাইকেল লেভিট;
আরিয়েহ ওয়ারশেল
জেমস ই. রথম্যান
র‌্যান্ডি ডাব্লিউ. শেকম্যান
টমাস সি. সুদোফ
এলিস মুনরোআন্তর্জাতিক রাসায়নিক অস্ত্র নিরস্ত্রীকরণ সংস্থাইউজিন ফামা;
লার্স পিটার হ্যান্সেন;
রবার্ট শিলার
২০১৪ইসামু আকাসাকি;
হিরোশি আমানো;
সুজি নাকামুরা
এরিক বেতজিগ;
স্টিফান হেল;
ডব্লিউ. ই. মোয়ের্নার
এডভার্ট মোজের;
মে-ব্রিট মোজের;
জন ও’কিফ
প্যাট্রিক মোদিয়ানোকৈলাশ সত্যার্থী;
মালালা ইউসুফজাই
জেন টিরোল
২০১৫তাকাকি কাজিটা;
আর্থার বি. ম্যাকডোনাল্ড
টমাস লিন্ডাল;
পাউয়েল মদ্রিখ;
আজিজ সানজার
উইলিয়াম সি. ক্যাম্পবেল;
সাতোশি ওমুরা;
তু ইউইউ
সভেতলানা আলেক্সিয়েভিচতিউনিশিয়ান ন্যাশনাল ডায়লগ কুয়ার্টেটআঙ্গুশ ডিয়াটোন
২০১৬ডেভিড জে. থলেস;
ডানকান হল্ডেন;
মাইকেল কস্টারলিৎজ
বেন ফেরিঙ্গা;
ফ্রেজার স্টডার্ট;
জ্যঁ-পিয়ের সভেজ
ইয়োশিনোরি ওসুমিবব ডিলনহুয়ান ম্যানুয়েল সান্তোসঅলিভার হার্ট;
বেংট হল্‌মস্ত্রম
বছরপদার্থবিজ্ঞানরসায়নচিকিৎসা শাস্ত্রসাহিত্যশান্তিঅর্থনীতি

তথ্যসুত্র