পোস্টগুলি

April, 2015 থেকে পোস্টগুলি দেখানো হচ্ছে

Mee

ছবি
Mee

me

ছবি
me
ছবি

http://uttarhowlahighschool.blogspot.com/?m=1

ছবি
http://uttarhowlahighschool.blogspot.com/?m=1

Mee

ছবি
Mee

Well done Tigers! 329+

ছবি
The highest total for Bangladesh in ODIs!
Well done Tigers! 329+++ Pakistan nedd 330

Meee

ছবি
Meeeeeeee

Me

ছবি
My photo

Tutorial House: Dorks For Carding

Tutorial House: Dorks For Carding

 <a href="http://www.mdalaminbijoy. blogspot.com">Md Alamin bijoy</a>

https://m.facebook.com/?hrc=1&_rdr#!/abdulmalek.shuvo.1?ref=bookmark

ছবি
https://m.facebook.com/?hrc=1&_rdr#!/abdulmalek.shuvo.1?ref=bookmark

বৃহস্পতির চাঁদে লুকানো সাগর!

ছবি
হাবল টেলিস্কোপ ব্যবহার করে
সৌরজগতের সবচেয়ে বড় গ্রহ বৃহস্পতির
গ্যানিমিড উপগ্রহপৃষ্ঠের নিচে
লুকানো সাগরের সন্ধান পেয়েছেন
বিজ্ঞানীরা। গ্যানিমিডের পৃষ্টের
নিচে নোনা পানির সাগরের
অস্তিত্ব সম্পর্কে বিজ্ঞানীরা আঁচ
করেছিলেন ৪ দশক আগেই। এবার হাবল
টেলিস্কোপে পর্যবেক্ষণ করে
পাওয়া ডেটা থেকে মিলেছে তার
প্রমাণ।
টানা ৭ ঘন্টা করে দুবারে মোট ১৪
ঘন্টা ধরে হাবল টেলিস্কোপের
মাধ্যমে গ্যানিমিডের অতি-বেগুনী
রশ্মী পর্যবেক্ষণ করেন নাসার
বিজ্ঞানীরা। বৃহস্পতির ওই ‘চাঁদের’
চৌম্বকক্ষেত্রের উপস্থিতি আগেই
চিহ্নিত করেছিল নাসার
‘অবসারপ্রাপ্ত’ স্পেসক্রাফট
গ্যালিলিও। তবে গ্যানিমিডের উপর
বৃহস্পতির চৌম্বকক্ষেত্রের প্রভাবই
বেশি।
বৃহস্পতির নিজ কক্ষপথে আবর্তন, আর
গ্রহটিকে ঘিরে গ্যানিমেডের
আবর্তন বিশ্লেষণ করে বিজ্ঞানীরা
নিশ্চিত হন বৃহস্পতির চৌম্বকক্ষেত্রের
বিপরীতে কাজ করছে আরেকটি
চৌম্বকক্ষেত্র।
এরপর বাকি উত্তর মিলেছে
কম্পিউটার মডেল থেকে।
গ্যানিমিডের ভূপৃষ্টের নিচে
লুকিয়ে আছে নোনা পানির সাগর।
আর নোনা পানির হওয়ার যা
‘ইলেকট্রিকালি কনডাকটিভ’।
বৃহস্পতির চৌম্বকক্ষেত্রের টানে
গ্যানিমিডের অরোরা সরার কথা ৬
ডিগ্রি করে। কিন্তু নোনা পানির ওই
সাগরের কারণে ২ ডিগ্রি হারে
সরছে …

মঙ্গলে অপারচুনিটির ম্যারাথন পার

ছবি
পৃথিবীর বাইরে কোনো পৃষ্ঠে
সবচেয়ে বেশি দুরত্ব ভ্রমণের রেকর্ড
গড়েছে মার্কিন মহাকাশ গবেষণা
প্রতিষ্ঠান ন্যাশনাল অ্যা্রোনেটিকস
অ্যান্ড স্পেস অ্যাডমিনস্ট্রেশনের
(নাসা) মহাকাশযান ‘অপারচুনিটি’।
মঙ্গলবার মহাকাশযানটি মঙ্গলপৃষ্ঠে ৪২
কিলোমিটার দূরত্ব অতিক্রম করে, যা
ম্যারাথনের দূরত্বের প্রায় সমান। এ
দূরত্ব অতিক্রম করতে যানটির সময়
লেগেছে ১১ বছর ২ মাস।
মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন এক
প্রতিবেদনে জানিয়েছে, এই
প্রথমবার কোনো মহাকাশযান
ম্যারাথনের দূরত্ব অতিক্রম করল।
যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায়
অবস্থিত নাসার জেট প্রোপালশন
ল্যাবরেটরির (জেপিএল) অপারচুনিটি
প্রজেক্ট প্রধান জন ক্যালাস বলেন, “এই
প্রথমবার মানুষের তৈরি কোনো যান
পৃথিবীর বাইরের কোনো পৃষ্ঠে
ম্যারাথনের দূরত্ব অতিক্রম করল।”
এর পৃথিবীর বাইরে কোনো পৃষ্ঠে
সবচেয়ে বেশি দূরত্ব অতিক্রমের
রেকর্ড ছিল রাশিয়ান মহাকাশযান
লুনোখোদ ২-এর দখলে। এবার ওই রেকর্ড
ভেঙ্গে তালিকার শীর্ষে এলো
অপারচুনিটি।
অপারচুনিটি মিশনের প্রধান গবেষক
যুক্তরাষ্ট্রের কর্নেল ইউনিভার্সিটির
অধ্যাপক স্টিভ স্কুয়েরেস বলেন, এ
মিশনের উদ্দেশ্য সর্বোচ্চ দূরত্ব রেকর্ড
গড়া না হলেও মঙ্গলপৃষ্ঠে ম্যারাথন
দূরুত্ব অতিক্রম করা অবশ্যই বড় কিছু…

নক্ষত্রের সৃষ্টি দেখলেন জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা

ছবি
নক্ষত্রের সৃষ্টি পর্যবক্ষেণ করতে
পেরেছেন জ্যোতিবির্জ্ঞানীরা।
নক্ষত্র সৃষ্টির এই সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া
দেখতে দুটি রেডিও টেলিস্কোপের
ব্যবহার করেছেন তারা।
এক প্রতিবেদনে সংবাদমাধ্যম
বিবিসি জানিয়েছে, ১৯৯৬ সালে
নক্ষত্রটির সৃষ্টি প্রক্রিয়া শুরু হলে
রেডিও টেলিস্কোপে তা ধরা পড়ে
এবং ১৮ বছর পর পৃথক আরেক রেডিও
টেলিস্কোপের সাহায্যে নতুন
নক্ষত্রটির সৃষ্টি প্রক্রিয়া সম্পন্ন হতে
দেখেন বিজ্ঞানীরা।
নতুন এই নক্ষত্রটি পৃথিবী থেকে চার
হাজার দুইশ’ আলোকবর্ষ দূরে অবস্থিত
এবং এটির চারপাশ গোলাকৃতির
ধুলার মেঘের আস্তরে ঘেরা বলেই
জানিয়েছে বিবিসি। সূর্যের
চেয়েও প্রায় তিনশ’ গুণ বেশি উজ্জ্বল
নতুন এ নক্ষত্রটির নাম দেয়া হয়েছে
W75N(B)-VLA2।
নক্ষত্রটির সৃষ্টি প্রক্রিয়া দেখার পর
ধারণা করা হচ্ছে, নক্ষত্র গড়ে ওঠার
সময় চৌম্বক ক্ষেত্র বড় ভূমিকা পালন
করেছিল। ২০০৯ সালে ভিন্ন এক
গবেষণা চলাকালীন জেআইভিই-এর
(জয়েন্ট ইন্সটিটিউট ফর ভিএলবিআই ইন
ইউরোপ) বিজ্ঞানীরা নক্ষত্রটির
বর্তমান অবস্থানের নিকটবর্তী
অঞ্চলে এক বৃহৎ চৌম্বকীয় ক্ষেত্রের
খোঁজ পেয়েছিলেন যা নক্ষত্রটিকে
ঘিরে রেখেছিল।
জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা ধারণা
করছেন, ১৮ বছর আগে নক্ষত্রটির জন্মের
সময় যে বিস্ফোরণ ঘটেছিল সেটির
সঙ্গ…

প্রস্তুত নাসার ওরিয়ন স্পেসশিপ

ছবি
বৃহস্পতিবার মহাকাশ যাত্রার জন্য
প্রস্তুতি শেষ নাসার নতুন ওরিয়ন
মহাকাশযানের। অভিযানে
পৃথিবীকে ঘিরে দুবার চক্কর দিয়ে
প্রশান্ত মহাসাগরে আছড়ে পরবে
ওরিয়ন। তবে এর মানে এই নয় যে,
প্রশান্ত মহাসাগরেই শেষ হবে ওরিয়ন
অধ্যায়। বৃহস্পতিবারের অভিযান
কেবলই টেস্ট ফ্লাইট, মূল লক্ষ মঙ্গল।
সিএনএন এক প্রতিবেদনে
জানিয়েছে, অনেক দৃষ্টিকোণ
থেকেই নাসার স্বর্ণযুগের অ্যাপলো
মিশনগুলোর কথা মনে করিয়ে দিচ্ছে
ওরিয়ন। বৃহস্পতিবার ফ্লোরিডার কেপ
ক্যানেভেরাল থেকে স্থানীয় সময়
সকাল ৭টা ৫ মিনিটে প্রথম টেস্ট
ফ্লাইট যাত্রা শুরু হবে ওরিয়নের।
ভূ-পৃষ্ঠ থেকে ৩ হাজার ৬’শ মাইল
উচ্চতায় পৌঁছে পৃথিবীকে ঘিরে
দুবার চক্কর দেবে নাসার নতুন
মহাকাশযানটি। প্রথম অভিযানে
ওরিয়নে থাকছে না কোনো
নভোচারী। তবে নতুন মহাকাশযানটির
বদৌলতে ‘স্পেস রেসে’ পিছিয়ে
পড়া নাসা হারানো গতি ফিরে
পাবে বলে আশা প্রকাশ করেছে
সিএনএন।
টানা ২১ দিনের মিশনের উপযোগী
করে তৈরি করা হয়েছে ওরিয়ন। ৪
থেকে ৬ জন নভোচারী বহন করতে
পারবে মহাকাশযানটি। সরাসরি
তুলনা করলে নভোচারী বহনের ক্ষমতা
আর মিশনের সর্বোচ্চ সময়ের হিসেবে
অ্যাপলো ক্যাপসুলের থেকে দ্বিগুণ
ক্ষমতাধর ওরিয়ন।

পরিবর্তন আসছে ফেসবুকে

ছবি
বিশ্বের শীর্ষ সামাজিক
যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের
বর্তমান প্ল্যাটফর্মে বেশ কিছু
পরিবর্তন আসছে। এর ফলে ফেসবুক
ব্যবহারকারীদের ব্যক্তি ও
ব্যবসাকেন্দ্রিক যোগাযোগ
আরো সহজ হবে। ফেসবুকে আসন্ন
কয়েকটি পরিবর্তনের তালিকা
প্রকাশ করেছে সংবাদ সংস্থা
সিএনএন। লিখেছেন আহমেদ
ইফতেখার
ফেসবুকের আয়োজনে সম্প্রতি
যুক্তরাষ্ট্রের স্যান
ফ্রান্সিসকোতে অনুষ্ঠিত
হয়েছে ‘এফ৮ ডেভেলপার্স
কনফারেন্স’। এবারের আয়োজনে
ফেসবুকের সহপ্রতিষ্ঠাতা মার্ক
জুকারবার্গ বেশ কিছু নতুন সেবা
চালু করার ঘোষণা দিয়েছে।
বিশ্বায়নের এ যুগে কোনো
সেবাই এককেন্দ্রিক থাকছে না।
ফেসবুকও এখন নিজস্ব সেবার
প্রসার বাড়াতে কাজ করছে।
সামাজিক যোগাযোগ খাতের
পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানটি এখন
ইন্টারনেটের পুরো
ইকোসিস্টেমে আধিপত্য
বিস্তারের চেষ্টা করছে।
অচিরেই ফেসবুক ৩৬০ ডিগ্রি
ক্যামেরা প্রযুক্তিতে ধারণ করা
ভিডিও সাপোর্ট করবে।
স্ক্রিনে ক্লিক ও ড্র্যাগ করে
ব্যবহারকারীরা বিভিন্ন
দৃষ্টিকোণ থেকে ওই
ভিডিওগুলো দেখতে পারবেন।
ফেসবুকের মেসেঞ্জার অ্যাপ ই-
কমার্স সাইটের অংশভুক্ত হচ্ছে।
ফলে ভবিষ্যতে ব্যবহারকারীরা
অনলাইনে কিছু কেনার পর
চাইলে সেই সাইটের
অ্যাকাউন্টের সাথে নিজের
ফেসবুক অ্যাকাউন্টটি সংযুক্ত
করতে পারবেন। এতে ই-কমার্স
সা…

প্রোটিনের অভাবে ভুগছেন? সহজেই জানুন

ছবি
দেহে প্রতিটি খাদ্য
উপাদানের প্রয়োজনীয়তা
রয়েছে। আপনি অনেক দ্রুত ওজন
কমাতে
চান বলেই খাদ্যতালিকা থেকে
ফ্যাট এবং কার্বোহাইড্রেট
ঝেড়ে পুছে বাদ দিতে পারেন
না।
তেমনই কোনো কারণে
খাদ্যতালিকা থেকে চাইলেই
কোনো একটি খাদ্যউপাদানও
বাদ
দিতে পারেন না। যদি কোনো
খাদ্য উপাদানে ঘাটতি পড়ে
তাহলে সেই উপাদানের
অভাবজনিত নানা রোগে ভুগতে
হবে আপনাকে। এবং দেহের
রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাটিও
হারাতে হবে এর পাশাপাশি।
প্রোটিন আমাদের দেহের
মাংসপেশি গঠন, মস্তিষ্কের
উন্নয়নে
অনেক কার্যকরী। আপনার যদি
নিয়মিত সঠিক পরিমাণে
প্রোটিন খাওয়া না হয় তাহলে
প্রোটিনের ঘটতি জনিত নানা
সমস্যায় ভুগবেন আপনি যা
পরবর্তীতে মারাত্মক আকার
ধারণ
করতে পারে। তাই অবহেলা নয়
একেবারেই। কীভাবে বুঝবেন
আপনার দেহে প্রোটিনের
ঘটতি রয়ে যাচ্ছে? একটু নজর
করলেই ধরে ফেলতে পারবেন
বেশ ভালো করে। কারণ
প্রোটিনের ঘটতি হলে শরীরে
দেখা যায় নানা লক্ষণ। আসুন
জেনে চলুন জেনে নেওয়া যাক
লক্ষণগুলো ।
১. আপনি অতিরিক্ত মিষ্টি
জাতীয় খাবার খেতে থাকবেন
প্রোটিনের অন্যতম প্রধান কাজ
হচ্ছে দেহের সুগারের মাত্রা
নিয়ন্ত্রণে রাখা। যখন এর ঘাটতি
পড়বে আপনার দেহে তখন আপনার
মস্তিষ্কে সিগন্যাল যাবে
চিনি জাতীয় খাবার খাওয়ার
ব্যাপারে। আর প্রয়োজনের
তুলনায় …

মস্তিষ্কের ক্ষতি করে যে খাবারগুলো

ছবি
কিছু খাবার এত সুস্বাদু যে যতই
খাওয়া হোক, তৃপ্তি যেন
মেটে না৷ কিন্তু সব খাবার
তৃপ্তি মিটিয়ে খেলে
উপকারের চেয়ে ক্ষতির আশঙ্কাই
বেশি৷ বিজ্ঞানীরা
দেখেছেন, জনপ্রিয় পাঁচটি
খাবার একটু বেশি খেলে
মস্তিষ্কের জটিল রোগও হতে
পারে৷
গোস্ত অনেকেরই প্রিয়৷ গরু বা
খাসির গোস্ত, চিকিৎসকরা
যেগুলোকে ‘রেড মিট’ বলেন,
সেগুলো তো কারো
কারো প্রতিদিনের খাবার৷
এসব গোস্ত প্রতিদিন তো নয়ই,
সপ্তাহে চারবারের বেশি না
খাওয়াই উত্তম৷ গবেষকরা বলছেন,
‘রেড মিট’ সপ্তাহে চারবারের
বেশি খেলে আলঝাইমারের
ঝুঁকি বাড়ে৷
গরু ও খাসির গোস্ত
দিনে এক চা চামচের পরিমাণ
মাখন খাওয়া যেতে পেরে
কিন্তু এর বেশি হলেই বিপদ৷
গবেষকরা বলছেন, মাখন বা
মাখনজাতীয় খাবার না খেয়ে
খাদ্য তালিকায় অলিভ অয়েল
যোগ করা সবচেয়ে নিরাপদ৷
তাহলে মস্তিষ্কের রোগের
আশঙ্কা খুব একটা থাকবে না৷
মাখন বেশি খেলেও মহাবিপদ
পনির খুব সুস্বাদু৷ মস্তিষ্কের জটিল
রোগ আলঝাইমার থেকে দূরে
থাকতে চাইলে সপ্তাহে মাত্র
একবার পনির খেতে হবে৷
বেশি খেলে পনিরও ক্ষতিকর
তেলে ভাজা খাবার এমনিতেই
নানা রোগের কারণ৷ ফাস্টফুডও
তাই৷ এ ধরণের খাবার
ডাক্তাররা এমনিতেই কম খেতে
বলেন৷ আলঝাইমারের ঝুঁকি আছে
এমন লোকদের তো এসব থেকে
নিরাপদ দূরত্বে থাকতেই হব…

গ্যাসট্রিক থেকে দূরে থাকতে...

ছবি
জীবনে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায়
ভোগেননি- এমন লোকের
সংখ্যা খুবই কম। যদি কিছু নিয়ম
মেনে চলা যায় তবে এই সমস্যা
থেকে দূরে থাকা যাবে।
জেনে নিন তেমনি কিছু টিপস-
আপনি তিন বেলার খাবারকে
ভাগ করে ছয়বার খান৷ তেলে
ভাজা খাবার, অতিরিক্ত ঝাল,
চর্বি, মসলা, মিষ্টি, অর্থাৎ যেসব
খাবার হজম করতে সমস্যা হয়,
সেগুলো খাবার তালিকা
থেকে আস্তে আস্তে কমিয়ে
দিয়ে হালকা খাবার খান৷
যেমন- আপনার খাবারের
তালিকায় থাকতে পারে মাছ,
অল্প মাংস, সবজি, আলু ইত্যাদি৷
এছাড়া খালি পেটে ফলের রস
বা টক জাতীয় খাবার
একেবারেই নয়৷
তিন বেলার খাবার ছয় বেলায়
খান
পরিমাণে অল্প খাবার একটু
ধীরে ধীরে ভালো করে
চিবিয়ে খান৷ দুপুরে খাওয়ার পর
পরই ঘুমানো উচিত নয় কারণ এতে
খাবার আবার পাকস্থলীতে
ফিরে আসতে পারে৷ বরং হাতে
সময় থাকলে খাবার পর একটু হাঁটা
যেতে পারে, যা খাবার হজম
এবং মলত্যাগে সহায়তা করে
থাকে৷
খাবার উপভোগ করুন
পিপাসা মেটাতে পানি এবং
হালকা চা পান করতে পারেন৷
তবে দিনে কম পক্ষে দুই লিটার
পানি পান করা উচিত, যাতে
খাবার পাকস্থলীতে ভালো
করে মিশে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর
করতে পারে৷ কফি বা
অ্যালকোহল যতটা সম্ভব কম পান
করলেই ভালো৷ তবে শুধু খাবার
নয়, পানি পান করার দিকেও
কিছুটা গুরুত্ব দিতে হবে৷
বুঝে পান করুন
খুব ট…